প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শ্রীকান্ত (তৃতীয় পর্ব).djvu/১৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


♚कनख-कृ€ीब्र नद @验> কাহারও নাই, কেবলমাত্র চাঙ্গারি চুপড়ি হাতে বুনিয়া এবং জলের দামে গ্রামান্তরে সংগৃহস্থের স্বারে বিক্রয় করির কি করিয়া যে ইহাদের দিনপাত হয় আমি ত ভাবিয়া পাইলাম না। এমন করিয়াই এই DDD DDBBBD DD DBBB BDD DDB BBB BBB BBBB DBDD DDD CBB DDD কোনদিন কেছ খেয়ালমাত্র করে নাই। পথের কুকুর যেমন জন্মিয়া গোটা-কয়েক বৎসর যেমনতেমনভাবে জীৰিত থাকিয় কোথায় কি করিয়া মরে তাহার যেমন কোন হিসাব কেহ কখন রাখে না, এই হতভাগ্য মানুষগুলোরও ইহার অধিক দেশের কাছে একবিন্দু দাবিদাওয়া নাই। ইহাসের দুঃখ, ইহাদের দৈন্য, ইহাদের সর্ববিধ হীনতা আপনার এবং পরের চক্ষে এমন সহজ এবং স্বাভাবিক হইয়া গিয়াছে যে, মানুষের পাশে মানুষের এত বড় লাঞ্ছনায় কোথাও কাহারও মনে লজ্জার কণামাত্র নাই। কিন্তু সাধু যে আমার মুখের প্রতি লক্ষ্য করিতেছিলেন আমি জানিতাম না। তিনি হঠাৎ কহিলেন, দাদা, এই হচ্চে দেশের সত্যিকার ছবি। কিন্তু মন খারাপ করবার দরকার নেই। আপনি ভাবছেন এসব বুঝি এদের অহরহ দুঃখ দেয়, কিন্তু তা মোটেই নয়। আমি ক্ষুব্ধ এবং অত্যন্ত বিস্মিত হইয়া কহিলাম, এটা কি-রকম কথা হ’ল সাধুজী ? সাধুজী বলিলেন, আমদের মত যদি সর্বত্র ঘুরে বেড়াতেন দাদা, তাহলে বুঝতেন আমি প্রায় সত্যি কথাটাই বলেচি। দুঃখটা বাস্তবিক কে ভোগ করে দাদা? মন ত? কিন্তু সে বালাই কি আমরা আর এদের রেখেচি ? বহুদিনের আবিশ্রাম চাপে একেবারে নিঙড়ে বার করে দিয়েচি। এর বেশি চাওয়াকে এখন নিজেরাই এরা অন্যায় স্পর্ধা বলে মনে করে। বাঃ রে বাঃ! কি কলই না আমাদের বাপপিতামহরা ভেবে ভেবে আবিষ্কার করে গিয়েছিলেন। এই বলিয়া সাধু নিতান্ত নিষ্ঠুরের মতই হাঃ-হাঃ করিয়া হামিত্ত্বে লাগিলেন। আমি কিন্তু সে হাসিতে যোগ দিতে লরিলাম না, এবং তাহার কথাটারও ঠিক অর্থ গ্রহণ করিতে না পারিয়া মনে মনে লজ্জিত হইয়া উঠিলাম। এ বৎসর ফসল ভাল হয় নাই, জলের অভাবে হেমন্তের ধানটা প্রায় আট-আনা রকম শুকাইয়া গিয়া ইতিমধ্যেই অভাবের হাওয়া বহিতে শুরু করিয়াছিল। সাধু কহিলেন, দাদা, যে ছলেই হোক ভগবান যখন আপনাকে আপনার প্রজাদের মধ্যে ঠেলে পাঠিয়েচেন, তখন হঠাৎ আর পালাবেন না, অন্ততঃ এ বছরটা কাটিয়ে যাবেন। বিশেষ কিছু যে করতে পারবেন তা ভাবিনে, তবে চোখ দিয়েও প্রজার দুঃখের ভাগ নেওয়া ভাল, তাতে জমিদারি করার পাপের বোঝাটা কতক হাল্কা হয়। আমি মনে মনে কেবল দীর্ঘশ্বাস ফেলিয়া ভাবিলাম জমিদারি এবং প্রজা আমারই বটে। কিন্তু পূর্বেও যেমন জবাব দিই নাই, এবারও তেমনি নীরব হইয়া রছিলাম। ক্ষুদ্র গ্রাম প্রদক্ষিণ করিয়া স্নান BBD DBB BBB BBBBBS BBB BB BBB BBB BBS BB BBBBB BB DDBL আমাদের উভয়কে খাইতে দিয়া রাজলক্ষ্মী একপাশে বসিল। সমস্ত রান্না : নিজে বাধিয়াছে, সুতরাং মাছের মুড়া ও দধির সর সাধুর পাতেই পড়িল। সাধুজী বৈরাগী মানুষ, কিন্তু সাত্ত্বিক এবং অসন্ধিক, নিরামিষ এবং আমিষ কিছুতেই তাহার কিছুমাত্র বিরাগ দেখা গেল না, বরঞ্চ এরূপ উজ্জাম অনুরাগের পরিচয় দিলেন যাহা ঘোর সাংসারিকের পক্ষেও দুর্লভ। রায়ার ভাল-মদের সমঝদার ব্যক্তি বলিয়াও যেমন আমার খ্যাতি ছিল না, আমাকে বুঝাইবার দিকেও রাঁধুনীর কোনরূপে আগ্রহ প্রকাশ পাইল 芮段 সাধুর তাড়া নাই, অত্যন্ত ধীরে সুস্থে আহার করিতে লাগিলেন। চর্বণ করিতে করিতে কহিলেন, দিদি, সম্পত্তিটি সত্যিই ভাল, ছেড়ে যেতে মায়া হয়। রাজলক্ষ্মী কছিল, ছেড়ে যেতে ত তোমাকে আমরা সাধাঁচ ে ৈশই? সাধু হাসিয়া কছিলেন, সন্ন্যাসী-ফকিরকে কখনো এত প্রশ্ৰয় দেবেন না, দিদি, ঠকবেন। তা সে যাই হোক, গ্রামটি বেশ, কোথাও একজন এমন চে, পঙ্কল না যার জল ষ্ঠেয়া যায়। এমন একটা बग्न cषषजाय ना बान्न कारन ४कन्छ0ि जाछ थफ़ चारश्-cशन कथिरभन्न श्रावध। আজমের সহিত অস্পৃশ্য গৃহগুলির একদিক দিয়া যে উৎকট সাদৃশ্য ছিল, সেই কথা মনে করিয়া DDD BB DD BB BBB BBB BBS BBB BBD DBBTBB BB BBB BBSTDD DBB DBBBD DD DB BS BBDD BBB BDD BBB BS