পাতা:শ্রীকান্ত (তৃতীয় পর্ব).djvu/৬৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


&$br भङ्ग५ग्लाघ्त्राब्री ছেলেটি তাহার রাঢ়দেশের ভাষায় তৎক্ষণাৎ জবাব দিল, নামবো কিসের তরে ? বঙ্গদ আপনি নেমে গেল । নেমে গেল কি রে ? তুই কি গরু সামলাতে পারিস নে ? না। বলদ নতুন যে। খুব ভাল। কিন্তু এদিকে যে অন্ধকার হয়ে এল, গঙ্গামাটি আর কতদূরে ? তার কি জানি! গঙ্গামাটি কখনো আসচি নাকি? বলিলাম, কখনো যদি আসনি বাবা, তবে আমার উপরেই বা এত প্রসন্ন হলে কেন ? কাউকে জিজ্ঞেস কর না রে, গঙ্গামাটি আর কতদূরে ? উত্তরে সে কহিল, এদিকে লোক আছে নকি ? নেই ! ছেলেটার আর যাই দোষ থাক, জবাবগুলি যেমন সংক্ষিপ্ত তেমনি প্রাঞ্জল। জিজ্ঞাসা করিলাম, তুই গঙ্গামাটির পথ চিনিস ত? তেমন সুস্পষ্ট উত্তর । কহিল, না। তবে এলি কেন রে ? মামা বললে, বাবুকে নিয়ে যা। এই সোজা দক্ষিণে গিয়ে পুবে কি ধরলেই গঙ্গামাটি। যাবি জার আসবি । সম্মুখে অন্ধকার রাত্রি, আর বেশি বিলম্বও নাই। এতক্ষণ ও চোখ বুঞ্জিয়া লিঞ্জেব চিস্তাতেই মগ্ন "ছিলাম, ছেলেটার কথায় এবার ভয় পাইয়া বলিলাম, এই সোজা দক্ষিণের বদলে উওরে গিয়ে পশ্চিমে বঁকে ধবিস নি ত রে ? ছেলেটা কহিল, তার কি জানি । বলিলাম, জানিস নে ত চল দু’জনে অন্ধকারে যমের বাড়ি যাই। হতভাগা: পথ চিনিস নে ও এলি কেন ? তোর বাপ মা আছে ? না, মরে গেছে। আপদ গেছে। চল, তা হলে আজ রাত্রে তাদের কাছেই যাওয়া যাক তোল মামাব শুধু বুদ্ধি BB BBBB BBBB BBBB BBB TBB KBBeB DDggS ekBBB BS BBB BB BBS পাপ্লিবে না । জিজ্ঞাসা করিলাম, থাকবি কোথায় ? সে জবাব দিল যে, সে ঘরে ফিরিয়া উপায় ? কিন্তু এই অবেলা সন্ধ্যাবেলায় আমার যাইবে ? পূর্বে বলিয়াছি ছেলেটি স্পষ্টবাদী। কহিল, তুমি বাবু নেবে যাও। মামা বলে গেছে ভাড়া পাঁচ সিকে। কম দিলে আমাকে মারবে । কহিলাম, আমার জন্যে তুমি মার খাবে সে কেমন কথা: একবার ভাবিপাম, এই গাড়িতেই যথাস্থানে ফিরিয়া যাই। কিন্তু কেমন যেন প্রবৃত্তি হইল না। রাত্রি আসন্ন, স্থান অপরিচিত, লোকালয় যে কোথায় এবং কতদূরে বুঝিবার জো নাই ; কেবল সুমুখে একটা পড় আম-কঁঠালের বাগান দেখিয়া অনুমান করিলাম গ্রাম বোধ হয় খুব বেশি দূরে হইবে না। আশ্রয় হয়ত একটা মিলিলে। আর যদি নাই-ই মিলে তাহাতে-বা কি ? নাহয়, এমনি করিয়াই এবার যাত্রা শুরু হইবে। নামিয়া ভাড়া চুকাইয়া দিলাম। দেগিলাম, ছেলেটির শুধু কথাই নয়, কাজের ধালাও চমৎকার স্পষ্ট। নিমেষে গাড়ির মুখ ফিরাইয়া লইল, বুযযুগল গৃহ প্রত্যাগমনের ইঙ্গিতময় চোখের পলকে চোখের অদৃশ্য হইয়া গেল। ভের সন্ধা শেষ হইল বলিয়া, কিন্তু রাত্রির অন্ধকার গাঢ়ওর হইয়া উঠিতে তখনও বিলম্ব ছিল। এই সময়টুকুর মধ্যে যেমন করিয়া হউক আশ্রয় খুঁজিয়া বাহির করিঙে হইবে। এ কাজ আমার পক্ষে