পাতা:শ্রীমদ্‌ভগবদ্‌গীতা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/১০৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় অধ্যায় । &ు ভগবান তাহার কৰ্ত্তব্যপ্রতিবন্ধের অপনয়ন করিতেছেন মাত্র । অতএব ‘যুদ্ধ কর’ ইহা অনুবাদ মাত্র, বিধি নয় ।” অনেকের বিশ্বাস, যে এই গীতগ্রেন্থের স্থল উদ্দেশু-যুদ্ধের হ্যায় নৃশংস ব্যাপারে মনুষ্যের প্রবৃত্তি দেওয়া । তাহারা যে গীত বুঝিবার চেষ্টা করেন নাই, তাহা বলা বাহুল্য। গীত, বাজারের উপন্যাস-গ্রন্থ নহে যে একবার পড়িব মাত্র উহার সমস্ত তাৎপৰ্য্য বুঝা যাইবে । বিশেষরূপে উহার আলোচন না করিলে বুঝা যায় না । গীতার এতদংশের উদ্দেশু-স্বধৰ্ম্মপালনের অপরিহার্য্যতা প্রতিপন্ন কর । স্বধৰ্ম্ম বলিলে শিক্ষিত সম্প্রদায় বুঝিতে কষ্ট পাইতে পারেন, ইহার ইংরেজি প্রতিশব্দ– 2puty—শুনিলে বোধ হয় সে কষ্ট থাকিবে না । গীতার এতংশের উদ্বেগু—সেই Duty ধৰ্ম্মের অবগুসম্পাদ্যতা প্রতিপন্ন কর । সকল মঙ্গুষ্যের স্বধৰ্ম্ম এক প্রকার নহে-কাহারও স্বধৰ্ম্ম দণ্ড-প্রণয়ন ; কাহারও স্বধৰ্ম্ম ক্ষমা ৷ শিপাহির স্বধৰ্ম্ম শক্ৰকে আঘাত করা, ডাক্তারের স্বধৰ্ম্ম সেই আঘাতের চিকিৎস। মনুষ্যের ষত প্রকার কৰ্ম্ম আছে, তত প্রকার স্বধৰ্ম্ম আছে । কিন্তু সকল প্রকার স্বধৰ্ম্ম মধ্যে যুদ্ধই সৰ্ব্বাপেক্ষ নৃশংস ব্যাপার। যুদ্ধ পরিহার করিতে পারিলে, যুদ্ধ কাহারও কর্তব্য নহে । এমন অবস্থা ঘটে, যে এই নৃশংস কাৰ্য্য অপরিহার্য্য ও অবশুসম্পাদ্য হইয় উঠে । তৈমুরলঙ্গ বা নাদের দেশ দগ্ধ ও লুষ্ঠিত করিতে আসিতেছে, এমন অবস্থায় যে যুদ্ধ করিতে জানে, যুদ্ধ তাঁহারই অপরিহার্য্য ও অবশ্যসম্পাদ্য ও স্বধৰ্ম্ম । অতএব গীতাকার স্বধৰ্ম্ম-পালন সম্বন্ধে ইংরেজি দর্শনশাস্ত্রে যাহাকে Crucial instauce বলে, তাঁহাই অবলম্বন করিয়া স্বধর্মের অবগুসম্পাদাতা ఫె