পাতা:শ্রীমদ্‌ভগবদ্‌গীতা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/১৭৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় অধ্যায় । go) রাগদ্বেষবিমুক্তৈস্তু বিষয়ানিন্দ্ৰিয়ৈশ্চরন । আত্মবশ্যৈৰ্বিধেয়াত্মা প্রসাদমধিগচ্ছতি ॥ ৬৪ ৷৷ যিনি রিধেয়াত্মা, তিনি অকুরাগ ও বিদ্বেষ হইতে বিমুক্ত এবং আপনার বহু ইঞ্জিয়গণের দ্বারা বিষয়ের উপভোগ করিয়া প্রসাদ লাভ করেন । বিধেয়াত্মা—যাহার আত্মা ও অস্তঃকরণ বশবৰ্ত্তী । ঈদৃশ ব্যক্তির ইন্দ্রিয় সকল নিজের আজ্ঞাধীন—বলের দ্বার। তাহার চিত্ত হরণ করিতে পারে ন; ; তfহার ইন্দ্রিয় সকল ভোগ্য বিষয়ের প্রতি অনুরাগ ও বিদ্বেষ হইতে বিমুক্ত-—ইন্দ্রিয় সকল তাহার বশ, তিনি হন্দ্রিরের বশ নহেন । ঈদৃশ ব্যক্তি ইন্দ্রিয়াদিবিষয়ের উপভোগ করিয়া প্রসাদ বা শান্তি * লাভ করেন । অর্থাৎ ক্টাহার স্কৃত উপভোগ দুঃখের কারণ নহে, সুখের কারণ । তাই কলিতেছিলাম, যে গীতোক্ত caề #*# Ascelic Philosophy ac*-— প্রকৃত পুণ্যময় ও সুখময় ধৰ্ম্ম । বিবরের উপভোগ ইহাতে নিষিদ্ধ সইতেছে না, তবে ইহার পরিমাণ ও উপযুক্ত বিধি কথিত হইয়াছে । একটা কথা বুঝাইতে বাকি আছে । বিধেয়াত্ম পুরুষের ইন্দ্রির সকলকে “রাগদ্বেষ বিমুক্ত”—অকুরাগ ও বিদ্বেষশূন্ত বলা হুইয়াছে। বিধেয়াত্মা পুরুষের ইন্দ্রিয়ভোগ্য বিষয়ে অম্বুরাগশূন্ত কেন হইবে, তাহা বুঝান নিম্প্রয়োজন । কিন্তু বিদ্বেষশূন্ত বলিবার কারণ কি ? ভোগ্য বিষয়ে অকুরাগই ইন্দ্রিয়ের স্বাভাবিক ধৰ্ম্ম, বিদ্বেষ অস্বাভাবি ক, কখন দেধান যায় না । ষাহার সম্ভাপুন নাই, তাহার নিষেধের কারণ কি ? আর ষদি উপভোগ্য

  • “Makes the heart glad.”–“:ftās strax efs, cosa