পাতা:শ্রীমদ্‌ভগবদ্‌গীতা-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/২৪১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


వ్రై - শ্ৰীমদ্ভগবদগীতা । S S S S S S S S S S SAM MM SMMMS SSSJJJSJJS ---------- -- --സാ সেগুলা কি পণ্ডশ্রম ?” ভগবান এই সংশয়ুচ্ছেদ করিতেছেন । সকলেই একই প্রকার চিত্তভাবের অধীন হইয়। আমার উপাসন। করে না । যে যে ভাবে আমার উপাসনা করে, তাহাকে সেইরূপ ফল দান করি । যে যাহা কামনা করিয়া আমার উপাসন করে, তাহার সেই কামনা পূর্ণ করি। যে কোনও কামনা করে ন,—অর্থাৎ যে নিষ্কাম, সে আমায় পায় । কামনাভাবে তাহার কামনা পূর্ণ হয় না, কিন্তু সে আমায় পায় । তার পর দ্বিতীয় চরণ ॥ “মনুষ্য সৰ্ব্ব প্রকারে আমার পথের অঙ্কবত্তী হয়,” এ কথার অর্থ সহসা এই বোধ হয়, যে, “আমি যে পথে চলি, মানুষ সৰ্ব্বপ্রকারে সেই পথে চলে । এখানে সে অর্থ নহে— গীতাকারের “Idiom” ঠিক আমাদের “Idiom” সঙ্গে মিলিবে, এমন প্রত্যাশ করা যায় না । এ চরণের অর্থ এই যে, “উপাসনার বিষয়ে মনুষ্য যে পথই অবলম্বন করুক না, আমি বে পথে আছি, সেই পথেই মানুষকে আসিতে হইবে।” “মানুষ ষে দেবতারই পূজা করুক না কেন, সে আমারই পূজা করা হইবে, কেন না এক ভিন্ন দেবতা নাই । আমিই সৰ্ব্বদেব— অন্ত দেবের পূজার ফল আমিই কামনানুরূপ দিই। এমন কি, যদি মানুষ দেবোপাসনা না করিয়া কেবল ইন্দ্রিয়াদির সেবা করে, তবে সেও আমার সেবা । কেন না, জগতে আমি ছাড়া কিছু নাই--ইন্দ্রিয়াদিও আমি, আমিই ইন্দ্রিয়াদি স্বরূপে ইক্রিয়াদির ফল দিই।” ইহা নিকৃষ্ট ও ছঃথময় ফল বটে, কিন্তু যেমন উপাসনা ও কামনা, ভদকুরূপ ফল দান করি । পৃথিবীতে বহুবিধ উপাসনাপদ্ধতি প্রচলিত আছে । কেহ নিরাকারের, কেহ সাকারের উপাসনা করেন। কেহ একমাত্র