পাতা:সাধন-পথ.pdf/১৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


भिक्राझेक ] ՏՕ নহে, পরস্তু নামাপরাধ । নিজের মা অশান্ত ভাব অতিক্রম | করিয়া শান্তিলাভোদেশে ভুক্তি পিপাসায় চালিত না হইয়া তিনি যখন নিজ মঙ্গলের জন্য সম্বন্ধ জ্ঞানে উদাসীন হইয়া নামগ্ৰহণ করেন, তখন তাহার নামসেবনে আভাসমাত্র উদিত হয় ; সেই কালে তাহার নামগ্রহণ হয় না, নামাভাস মাত্র হয়। নামাতাসের ফলে প্রপঞ্চ-জ্ঞান হইতে মুক্তিলাভ করিয়া। পরমুহূৰ্ত্তে হরি-সেবা করিবার যোগ্যতা লাভ করেন। দুৰ্দৈবমুক্ত পুরুষোত্তমগণই শুদ্ধনামগ্রহণে সুবিমল কৃষ্ণপ্রেমা লাভ করেন। ** *া বদ্ধজীবের দুৰ্গতি দেখিয়া শ্ৰীগৌরসুন্দর শ্ৰীনামভজন-প্ৰণালী, শিক্ষণ দিতে গিয়া অনুরাগের অভাবরূপ দুৰ্দৈবের উল্লেখ্য, করিয়াছেন, কিন্তু এইরূপ দুৰ্দৈবের মধ্যেও ভগবৎকৃপা বৰ্ত্তমান। নামাপরাধের হস্ত হইতে উন্মুক্ত হইবার উপায় আছে। } অপরাধের স্বরূপ জানিয়া অপরাধ · করিতে প্ৰবৃত্ত না হইলে এবং নিরন্তর নাম গ্ৰহণ করিলে :অপরাধের অবসর হয় না। নামাভাসে মুক্তি হয় তা অর্থাৎ বিষয়াভিনিবেশ ধবংস হয়, তৎপরেই শ্ৰীনাম গ্রহণে জীবের অধিকার - হয়। " এই সকল সুযোগ ভগবানের দয়ায় - এ পরিচায়ক । মুখ্যানমগ্রহণপ্ৰভাবে জীবের ঐকান্তিক ও - আত্যন্তিক আিম শ্রেয়োলাভ , গ ঘটে। ছিঃ ! যেখানে ? তুচ্ছঅবাস্তর ফললাভ। লালসা, সেখানে স্যা কালের ১ বিধি ও যোগ্যতা প্রভৃতির কঠিন হৈ বিধি । কিন্তু, ভগবানের টু দয়া : কালাকালের কঠিন নিগড় কি হইতে ন নামোচ্চারণকারীকে স্থা অবসর গত দিয়াছেন। কালের স্থা বিধিসম্বন্ধে শ্ৰীচৈতন্য ভাগবতে-“কি ! শয়নে, কি ভোজনে, শিকিবা জাগরণে অহনিশা । কৃষ্ণনাম বলহি ঐ বদনে ৷” “সৰ্ব্বক্ষণে বল " ত ইথেন্স বিধি নাহি । আর।” . ... শ্ৰীচরিতামৃতে--- digitized at BRCIndia.com