প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:সিক্ত সিঁথি দুরন্ত শ্রাবণ.pdf/৪১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নিজের তপণে বলো, মল্লিকা-বন আজো কোন অ-লৌকিক কুঁড়ি ! ঋতু রাখে নাকে হাত, হিংস্র কীট জর্জর করে না, প্রগাঢ় অত্যুক্তি সেও ফিরে আসে ঘর্মাক্ত মিস্তিরি, উদ্যত বাউল, কি স্ব অভিপ্রায়ী বসন্তের সেনা । ঈর্ষা প্রতিগ্রাহী তাই বড় জোর দু’একটি সবুজ নক্ষত্র প্রাপ্তব্য ছিন্ন অসম্ভব নীচু এ-কোচডে ঋতু ও কীটের থেকে আরো এক ঘনিষ্ঠ শত্রুর শেষের আগুনটুকু জলে ওঠে পাচটি পাজরে । হোক অবিশ্বাস্ত তবু শেষাবধি আকাশ-প্রতিম সাজাবো তোমায় খুব যতনে রতনে কেয়ুরে কুস্কুমে খুনে,—দিনান্তের ঘাতক পশ্চিম শুদ্ধতম রক্তে রাতে আত্মঘাতী বিহিত তপণে ॥ পয়ত্রিশ