পাতা:সিক্ত সিঁথি দুরন্ত শ্রাবণ.pdf/৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


একটি কবিতার প্রার্থনায় জীর্ণ একটা পুথি দিও, নেীকে একটা, নিভৃত গলুই, পরিমিত প্রাঞ্জলতা দিতে পারে এমন একটা কুষ্ঠিত লণ্ঠন, একভাগ ডাঙায়-দূরে-গুণ-টানার একজন বৈরাগী। আর সঙ্গী বলতে ? সে তো অনুভব, নদী-নিবেদন । স্থায়িত্ব-ই সব ; তটে, অবিচল বিশ্রাম-আগারে কান্নায় ভিজিয়ে নিয়ে বারান্দার নিরন্ত রোদপুরে অভ্যাসে শুকিয়ে নেওয়া সকালের চেলী নয়তো বিকেলের থান, ছেলেটি ঘুমোলে মুখে তন্ন তন্ন খুঁজে দ্যাখা : তৰ্পণ কী নয়নাভিরাম। তাই মশারি সরিয়ে আমি এতে রাত্রে নৌকো একটা নেীকে নেীকে চাই— নদী অবশ্বই রাত্রি, এক-আকাশ ছড়ানো গলুই, কিন্তু, সব শ্রেষ্ঠ কবি আজ একেবারে ঠাণ্ড ঘুমোয় টেবিলে। দুঃখে নিজে বুক খুঁড়ি ; কই, আমার জীর্ণ পুথি কই! Øቑ