প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:সিমার - শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.pdf/৭২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


হয়েছিল, নয় ? -হয়েছিল । -OR ? কেরছি। কী। এখন আমার কাছেই রয়েছে। হাল্লি ওকে তালক -সেকি ! মুহুর্তে সোমের চেহারা আরো গভীর আর স্তব্ধ হয়ে গেল । পাথরের মূর্তির মতো নিবাক হয়ে চশমার মধ্য দিয়ে নিম্প্রাণ চেয়ে রইল দেওয়ালের নেতাজীর ক্যালেণ্ডারে । আমিও আর কোনো কথা না বলে চুপচাপ খেয়ে যেতে লাগলাম। খাওয়া শেষ হলে পথে নােমলাম দু জন । দামী সিগারেট খেতে দিল সোম। ভাজা মসলার সুরভিত পান দিল । তার পর বললে, আবার আসছি। এ মাসের শেষের voifox ? আঙুলের গ্রন্থি গুনে দেখলাম, আমাদের দাম্পত্যেরও আজ ৮০ দিন চলছে। বললাম, আজ ১৭ তারিখ । সোম বললে, তার মানে আর দশ দিন । বললাম, হ্যাঁ । মাত্র দশ দিন । সোম বললে, আফটার টেন ডেজ আই মাস্ট কাম । সিওর । ২৭ অর ২৮ ৷৷ আমি চুপ করে দাঁড়িয়ে রইলাম। সোম রিকশায় উঠে পড়ে হাত নেড়ে বিদায় জানাল। রসিদ এদিকে আসছে। কাছে এলে রিকশায় পা তুলে উঠতে যাব, এমন সময় বাঁদর খেলানো ভিড়ে হামিদুলকে দেখে চমকে উঠলাম। পা নামিয়ে বললাম, থাক রসিদ । এখন যাচ্ছি না । কিন্তু হামিদুল শহরে কেন এল ! সেকি আমার বাসায় গিয়েছিল ? হামিদুল আমাকে কি দেখতে পেয়েছে ? ভিড়ের মধ্যে থেকে বাইরে বেরিয়ে ওদিকে কোথায় যাচ্ছে, আর এত দ্রুতই বা ছুটছে কেন ? হাতে ওটা পলিথিনের ব্যাগ, জামাকাপড় আছে। নিশ্চয়ই রাবেয়াকে দেখা করতে এসেছে। কলেজের দিকেই তো যাচ্ছে মনে হচ্ছে। নাহ্, এভাবে দাঁড়িয়ে বোকার মতো চেয়ে থাকার কোনো মানে হয় না। ওর নাম ধরে ডেকে উঠলেই বা ক্ষতি কি ছিল ? কিন্তু এখন তো আর শুনতে পাবে না । চেচিয়ে ডাকলে লোকে অসভ্য ভাববে । ছাত্ররা এদিকে এতদূরে কোথাও ছিটিয়ে অফ পিরিয়ডে হওয়া খেতেও চলে আসে। চিৎকার শুনলে হাসাহসি করবে । দৌড়ে যাব নাকি ? দৌড়লে তো চোরের পেছনে ছোেটা হয় । ছুটলে পর ছাত্ররা কি হয়েছে স্যরা বলে ছুটে আসবে। রসিদিও ዓለ8