পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/১০৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৯২
সিরাজদ্দৌলা।

বাসভবনের সম্মুখীন হইবে? মতিঝিলের অবারিত দ্বার অতিক্রম করিতে সেরূপ কোন ইতস্ততঃ ছিল না। সেখানে একবার পদার্পণ করিতে পারিলেই হইল। সেখানে সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্ম আদবকায়দার খুঁটি- নাটি নাই; গুরু লঘু বলিয়া আসন-পার্থক্য নাই; প্রভু-ভৃত্য বলিয়া ভিন্নভাব নাই; যেন আগন্তুক অতিথিগণই মতিঝিলের প্রভু, আর মতিঝিলের অধিপতি নওয়াজে মোহম্মদই তাহাদের পদানত ভৃত্য। সুতরাং লোকে দিন দিনই নওয়াজেসের পক্ষভুক্ত হইয়া উঠিতে লাগিল। *

 সিরাজদ্দৌলা এই সকল কারণে বড়ই উদ্বিগ্ন হইয়া উঠিলেন। মহারাষ্ট্রীয়দিগের সঙ্গে সন্ধিসংস্থাপন করিয়া নিরুদ্বেগে রাজ্যভোগ করি- বার জন্য আলিবর্দী যখন রাজধানীতে প্রত্যাগমন করিলেন, তখনই বুঝিলেন যে অনাহারে, অনিদ্রায়, শত্রুসেনার পশ্চাতে পশ্চাতে ছুটিয়া তাহার বলিষ্ঠ বীরতনুও রোগ-জর্জ্জরিত হইয়া পড়িয়াছে। একে বৃদ্ধ দশা, তাহাতে খল ব্যাধি; আলিবর্দ্দী আর ভাল করিয়া রাজকার্যে

 *He used to spend Rupees 37000 a month in charities ....He was fond of living well, and of amusement and pleasures; could not bear to be upon bad terms with any one; and was not pleased when a disservice was rendered to another ..... He loved

to live with his servants, as their friend and companion; and with

his acquaintances as their brother and equal. All his friends and acquaintances were admitted to the liberty of smoking their Hooquas in his presence, and to drink coffee whilst he was con- Versing familiarly with them."-Sair Mutakherin (Mustapha's translation:)