পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/১২১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১০৭
রাজবলভের ব্যবহার।

তিনি মুর্শিদাবাদে চলিয়া আসিলে, তাঁহার পুত্র কৃষ্ণবল্লভ কিছু দিন ঢাকার নবারী করিয়াছিলেন। কৃষ্ণবল্লভের অধীনে মীর আবুতালেব নামে একজন নাএব ছিল। সে ওলন্দাজ বণিকদিগের একজন শ্বেতাঙ্গ কর্মচারীকেও কারারুদ্ধ করিয়া উৎপীড়ন করিতে ছাড়ে নাই! এই সকল কথা ইংরাজগণ কাগজপত্রে লিখিয়া রাখিয়াছিলেন, কিন্তু সিরাজদ্দৌলার বিরুদ্ধে পঙ্গধারণ বা লেখনী চালনা করিবার সময়ে ইহা স্মরণ করা আবশ্যক মনে করেন নাই।

 রাজবল্লভের এবং কৃষ্ণবল্লভের উৎপীড়নে ইউরোপীয় বণিকগণ এরূপ বিপর্য্যন্ত হইতেন যে, সময়ে সময়ে তজ্জন্য নবাব-দরবারে সমুদায় শ্রেণীর ইউরোপীয় বণিকগণ সমবেতভাবে অভিযোগ উপস্থিত করিয়া পরিত্রাণ পাইতেন। কিন্তু অতি সামান্য সামান্য বিষয় লইয়া সেই ইংরাজেরাই আবার আশ্রয়দাতা মুসলমান নবাবের সঙ্গে কলহ করিতেও ইতস্ততঃ করিতেন না! কলিকাতাবাসী, কি হিন্দু কি মুসলমান, কেহ নিঃসন্তান অবস্থায় পয়লোক গমন করিলে, নবাব-সরকার হইতে তাদের ধনসম্পত্তি হস্তগত করিবার আয়োজন হইলে, ইংরাজগণ একটা না একটা ধূয়া ধরিয়া তখনই তাহাতে বাধা প্রদান করিয়া আসিয়াছেন।*[১]ফরাসীদিগের সঙ্গে ইংরাজের কুটুম্বিতারও অন্ত ছিল না। শত্রুতারও অবধি ছিল না। আলিবর্দ্দীর শাসনকালের শেষ দশায় ইউরোপে ইংরাজ এবং ফরাসীর মধ্যে যুদ্ধ বাধিবার উপক্রম হয়। সেই ধুয়া ধরিয়া ইংরাজগণ কলিকাতার দুর্গসংস্কার এবং সৈন্যদল গঠন

  1. “The Nawab Aliverdi Khan repeatedly claimed the property of Calcutta-Natives dying without male issue on the ground hat in such cases the Mongenal becomes heir."—Revd. Long