পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/১২৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১১৩
কৃষ্ণবল্লভের তীর্থযাত্রা।

অপরাধ ছিল না। সকলেই বলিতে লাগিল যে, বৃদ্ধ নবাবের শেষনিঃশ্বাস পতিত হইতে যাহা কিছু অপেক্ষা, রাজবল্লভ থাকিতে সিরাজদ্দৌলা কখনই সিংহাসনে বসিবার অবসর পাইবেন না; ঘসেটি বেগমের পালিত সন্তানই সিংহাসনে আরোহণ করিবে,—অতএব ঘসেটি বেগমের চিরানুগত বিশ্বস্ত মন্ত্রী রাজবল্লভের অনুরোধ আর কেমন করিয়া উপেক্ষা করা যায়? ওয়াটস্ যখন অনুরোধপত্র পাঠাইলেন, গবর্ণর ড্রেক সাহেব তখন স্বাস্থ্যলাভের জন্য বালেশ্বরের বন্দরে বায়ুপরিবর্তন করিতেছিলেন। তাঁহাকে জিজ্ঞাসা না করিয়াই কলিকাতার ইংরাজগণ কৃষ্ণবল্লভকে কলিকাতায় আশ্রয় দিতে স্বীকৃত হইলেন।” এদিকে কৃষ্ণবল্লভ ৺পুরুষোত্তমধাম দর্শন করিবেন বলিয়া, সপরিবারে নৌকাপথে যাত্রা করিলেন। ঢাকার বিপুল ধনভাণ্ডার বহন করিয়া কৃষ্ণবল্লভের তীর্থযাত্রার তরণীগুলি পথ ভুলিয়া পদ্ম ও জলঙ্গী নদী বাহিয়া ভাগীরথীতে আসিয়া উপস্থিত হইল এবং লোকে ভাল করিয়া বুঝিতে না বুঝিতে কলিকাতার বন্দরে গিয়া নিরাপদে উপনীত হইল।[১]

 সিরাজদ্দৌলা যে অত্যাচারী নিষ্ঠুর নবাব, তাহা বলিয়া রাজবল্লভ ভীত হইলেন না। তিনি জানিতেন যে, সিরাজদ্দৌলাই প্রকৃত নবাব আলিবর্দ্দীর মেহপুত্তল এবং প্রতিভাশালী তেজস্বী যুবক। সিরাজদ্দৌলা সিংহাসনে আরোহণ করিলে ঢাকার নেয়াবতে উপযুক্ত নবাব নির্ব্বাচন করিবার এবং পূর্বনবাব নওয়াজেস মোহম্মদ ও রাজবল্লভের হিসাব নিকাশ লইবার অধিকার সিরাজদ্দৌলারই হইবে॥[২] নবাব

  1. Orme's Indostan, ii 49
  2. এই সময়ে রাজবল্পত নিকাশ দিবার জন্যই মুর্শিদাবাদে আনীত হইয়া ছিলেন।