পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/১২৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১১৫
সিরাজদ্দৌল্লা ও শওকত জঙ্গ।

তথাপি মুসলমান ইতিহাসলেখক সাইয়েদ গোলামহোসেন সে কথা স্বীকার করেন নাই। সাইয়েদ আহমদের সঙ্গে বিশেষ ঘনিষ্ঠতা থাকায় তিনি অনেক সময়ে তাহার দরবারের শোভাবর্ধন করিতেন। তিনি লিখিয়া গিয়াছেন যে, মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্তও সাইয়েদ আহমদের বিশ্বাস ছিল যে, তিনিই আলিবর্দ্দীর সিংহাসনে আরোহণ করিবেন।[১]তাঁহার অভাবে তাঁহার পুত্র শওকতজঙ্গ বাহাদুর পূর্ণিয়ার নবাব হইয়াছিলেন। আলিবর্দীর সিংহাসনের উপর তাহারও কিঞ্চিৎ লোভদৃষ্টি পতিত হইয়াছিল। লোকে এ সকল কথা জানিত। রাজবল্লভ অনন্যোপায় হইয়া একটি শিশুসন্তানকে সিংহাসনে বসাইবার কল্পনা করিতেছিলেন; কিন্তু এখন সকলে মিলিয়া শওকতজঙ্গকে নবাব করিবার প্রস্তাব তুলিলেন।

 অর্থব্যয় করিতে হইবে না; শরীরের রক্ত ক্ষয় করিয়া নিরন্তর শিবিরে শিবিরে মৃত্যুক্রোড় আলিঙ্গন করিবার জন্য কৃপাণহতে ছুটাছুট করিতে হইবে না, জয় পরাজয়ের উৎকট চিন্তায় ব্যাকুল-হৃদয়ে বিনিদ্রনয়নে কালপ্রতীক্ষা করিতে হইবে না; যে যেখানে আছে, যে যেরূপ ভাবে আছে, যে যেমন পদগৌরব, সম্ভোগ করিতেছে, তাহা সকলই স্থির থাকিবে,—কেবল একটি মুখের কথা বলিলেই ঘদি শওকতজঙ্গ আসিয়া সিরাজদ্দৌলার মুণ্ডচ্ছেদ করিয়া সিংহাসনে আরোহণ করিতে অগ্রসর হন,তবে তাহাতে আর জমীদারদলের ইতস্ততঃ কি? সুতরাং সকলে সহজেই সম্মত হইলেন।

 শওকতজ বাহাদুর ইহাতে অসম্মত হইলেন না; কিন্তু তাঁঁহার প্রবীণ মন্ত্রিদল একটু ইতস্ততের মধ্যে পড়িলেন। অবশেষে তাঁঁহাদের

  1. Sair Mutakherin.