পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/১৭৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১৬২
সিরাজদ্দৌলা।

হইয়া যাইবে! আর যদি সিরাজদ্দৌলাই সশরীরে শুভাগমন করেন, তাহাতেই বা ভীত হইবার প্রয়োজন কি? তিনি ত সেই মাতামহস্নেহ- পালিত অপরিণতবয়স্ক অসংযতচিত্ত দুর্ব্বল বালক;—সময়োচিত সরল তোষামোদে এবং পদোচিত কয়েক সহস্র রজতখন্ড প্রয়োগ করিতে পারিলেই, অর্থলোলুপ নবীন নরপতি বিনা বাক্যব্যয়ে তাড়াতাড়ি মুর্শিদাবাদে প্রত্যাগমন করিতে কিছুমাত্র ইতস্ততঃ করিবেন না।

 এই সিদ্ধান্ত একেবারে ভ্রান্ত সিদ্ধান্ত নহে। কলিকাতায় বসিয়া নবাব-দরবারের প্রতিদিবসের তর্ক বিতর্কের যে সকল গুপ্ত সমাচার শুনিতে পাওয়া যাইত, তাহাতে ইংরাজদিগের মনে এইরূপ সিদ্ধান্তই সুদৃঢ় হইয়া উঠিয়াছিল। সিরাজদ্দৌলা যখন কলিকাতা আক্রমণের গুপ্তসঙ্কল্প পাত্রমিত্রদিগের নিকট দন্তস্ফুট করিলেন, তখন উৎকোচ- গ্রাহী ইংরাজহিতৈষী রাজকর্ম্মচারিমাত্রেই চারি দিক হইতে প্রবল প্রতিবাদ আরম্ভ করিলেন। তাহাদের প্রতিবাদের স্থুল মৰ্ম্ম সেই এক কথা;—“এখনও সুসময় উপনীত হয় নাই; এখনও সিংহাসন নিরাপদ হয় নাই; এখনও শওকতজঙ্গ পদানত হয় নাই; ইংরাজেরা নিতান্ত নিরীহ-স্বভাব বণিক্‌জাতি, তাহাদের দ্বারা এ দেশের প্রভূত কল্যাণ সাধিত হইতেছে; ইত্যাদি ইত্যাদি।”[১] সিরাজদ্দৌলা বুঝিলেন যে,

  1. Şeat Mootabray (Mahatab Roy) and Roop Chund, the sons of the banker Jaggatseat who had succeeded to the wealth and employments of their father, and derived great advantages from the European trade in the Province, ventured to represent the English as a colony of inoffensive and useful merchants, and earnestly éntreated the Nabob to moderate his resentment against them, but their remonstrances were vain.—Orme, vol. II 58.