পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/২১২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করার সময় সমস্যা ছিল।


যোড়শ পরিচ্ছেদ।


অন্ধকূপ-হত্যা—রহস্যনির্ণয়।

 যে অন্ধকুপ-হত্যার লোমহর্ষণ অত্যাচারকাহিনী সভ্যজগতের নিকট নবাব সিরাজদ্দৌলাকে নরশোণিতলোলুপ নৃশংস নরপতি বলিয়া শত কলঙ্কে কলঙ্কিত করিয়া রাখিয়াছে, দুর্ভাগ্যক্রমে এদেশের অধিবাসীদিগের নিকট তাহার অস্তিত্ব পর্য্যন্তও সর্ব্বজনসম্মত সন্দেহশূন্য ঐতিহাসিক সত্য বলিয়া পরিগণিত হইতে পারে নাই।[১]

  1. সংপ্রতি নবাবী আমলের বাঙ্গালার ইতিহাসে বন্দ্যোপাধ্যায় মহাশয় লিখিয়াছেন—“হলওয়েলের জ্বলন্ত বর্ণনায় অন্ধকূপ হত্যার কাহিনী কিয়ৎ পরিমাণে অতিরঞ্জিত হইলেও ঘটনা একবারে অস্বীকার করিবার উপায় নাই।” এই মতের উপর নির্ভর করিয়া তিনি সন্দীহান লেখক বর্গকে ভ্রান্ত বলিয়াছেন, কিন্তু ঘটনাটা কি? ১৮ ফুট ঘরে ১৪৬ জনের অবরোধ ও তজ্জনিত ১২৩ জনের অকাল মৃত্যুই কি ঘটনা নহে? যদি তাহাই ঘটনা হয় এবং তাহারই নাম অন্ধকূপ হত্যা হয়, তবে ইতিহাসে সে ঘটনার প্রমাণ পাওয়া যায় না। যে ঘটনার প্রমাণ পাওয়া যায় তাহা অন্ধকূপ হত্যা নামে কথিত হইতে পারে না। রাম নাই রামায়ণ, ১৪৬ জন অবরুদ্ধ 'হইয়া ১২৩ জন নিহত-—ইহা মিথ্যা বা অতিরঞ্জিত—তথাপি তাহার নাম অন্ধকুপ হত্যা!!