পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/২১৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১৯৯
অন্ধকূপহত্যা ও মুসলমান লিখিত ইতিহাস।

 এ কালের লোকের কথা বলিতে চাহিনা;— আমরা একালের লোক, ইংরাজ-ইতিহাসলেখকদিগের বর্ণনালালিত্যে বিমুগ্ধ হইয়া অন্ধকূপ হত্যার শোকসমাচার পাঠ করিতে করিতে কতবার সাশ্রুনয়নে হাহাকার করিতেছি; কত ছন্দোবন্ধে কবিতা রচনা করিয়া স্বজাতিসমাজে সেই শোকসমাচার প্রচারিত করিয়া সহৃদয়তার পরিচয় প্রদান করিতেছি; কখন বা রঙ্গমঞ্চের সুশিক্ষিত অভিনেতৃদলের নাট্যনৈপুণ্যে আত্মহারা হইয়া, “নিরখি নিবিড় নৈশ আকাশের পানে” শত বিভীষিকামুর্ত্তিতে বারম্বার, শিহরিয়া উঠিতেছি! যাঁহারা সেকালের লোক, যাঁহাদের চক্ষুর সম্মুখে ইংরাজ বাঙ্গালীর কুটিল কৌশলজালে পিঞ্জরাবদ্ধ হইয়া সিরাজদ্দৌলা ইহলোক হইতে অবসরগ্রহণ করিয়াছেন, তাঁহারা কিন্তু এই অন্ধকূপ-হত্যার বিন্দুবিসর্গও জানিতেন না!

 মুসলমানদিগের ইতিহাসে অন্ধকূপহত্যার নাম গন্ধও দেখিতে পাওয়া যায় না।[১] সাইয়েদ গোলাম হোসেনের রচিত “মুতক্ষরীণ” গ্রন্থ সেকালের সর্ব্বজনসমাদৃত সুবিস্তৃত ইতিহাস;—তাহাতে সিরাজদ্দৌলার অনেক কুকীর্ত্তির উল্লেখ আছে, ইংরাজদিগেরও অনেক দুঃখদৈন্যের সমাচার আছে; কিন্তু সমগ্র মুতক্ষরীণ গ্রন্থে, আকারে ইঙ্গিতেও, অন্ধ

  1. It is interesting to contrast the lights and shades of Orme's history with those of the Mahomedan historian. Thus the latter does not say a word about the Black Hole.—H. Beveridge, c. s.