পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/২৪১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
২২৭
ইংরাজ নির্ব্বাসন।

মাত্রেই কলিকাতা হইতে তাড়িত হইলেন।[১] ইংরাজের কপাল ভাঙ্গিল; তাহাদের জন্য আর কলিকাতায় স্থান হইল না। কেবল হেষ্টিংস প্রভৃতি কয়েকজন কুঠিয়াল কাশিমবাজারে বসিয়া রহিলেন, তদ্ভিন্ন আর আর ইংরাজেরা-যিনি যেখানে ছিলেন,—সকলেই আসিয়া লতার বন্দরে সমবেত হইতে লাগিলেন।

 এত দিনের পর ইংরাজের প্রবল প্রতাপ একেবারে চূর্ণ হইয়া গেল; কাশিমবাজার গেল; কলিকাতা গেল; কলিকাতার ইংরাজদুর্গের উপর রাজা মাণিকৰ্চাদের বিজয়পতাকা সগৌরবে আকাশে অঙ্গবিস্তার করিল। ইংরাজেরা অনন্যোপায় হইয়া গড্ডলিকা-প্রবাহের স্থায় ছুটিয়া আসিয়া ফতার পলায়িত জাহাজে সম্মিলিত হইতে লাগিল।

 সকলই ফুরাইল! তথাপি এ সকল শশাচনীয় কাহিনী সহসা মাদ্রাজের ইংরাজ-দরবারের কর্ণগোচর হইতে পারিল না! তাঁহারা সুদূর সমুদ্রকুলে বসিয়া ১৫ই জুলাই তারিখে কাশিমবাজার অবরোধের প্রথম সংবাদ প্রাপ্ত হন। তাহাতে তেমন বিচলিত হইবার কারণ ছিল না; বাঙ্গালাদেশ হইতে প্রায় মধ্যে মধ্যেই সেরূপ সংবাদ আসিত; আবার হয়ত সঙ্গে সঙ্গেই শুনা যাইত যে, “গোযোগ মিটমাট হইয়া গিয়াছে; সময়োচিত উপঢৌকন দিয়া সকলকেই শান্ত করিয়াছি; বাণিজ্য-ব্যবসায় একরূপ ভালই চলিতেছে!”[২] সুতরাং কাশিমবাজারের সংবাদ পাইয়াও, মাদ্রাজের ইংরাজ-দরবার কেবল কলিকাতায় সেনাবল বৃদ্ধি করিবার জন্য মেজর কিলপ্যাট্রিকের সঙ্গে ২৪০ জনমাত্র গোরা পল্টন

  1. Orme, vol. Il. 8o
  2. Thornton's History of British Empire, vol. I. 197