পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/২৮৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
২৭৫
সিরাজ সম্মত হইলেন কেন?

কথায় কর্ণপাত করিলেন না। তিনি কলিকাতায় শিবির-সংস্থাপন করিয়াই সন্ধিপত্র নির্দ্ধারণ করিবার জন্য ইংরাজদিগকে নিমন্ত্রণ করিয়া পাঠাইলেন। সিরাজদ্দৌলা কি ইংরাজ-ভয়ে ভীত হইয়াই সন্ধির জন্য এরূপ ব্যাকুল হইয়া উঠিয়াছিলেন? কেহ কেহ বলেন যে, তাহাই একমাত্র কারণ। কিন্তু ইংরাজেরা তৎকালে যেরূপ বিপদবেষ্টিত, তাহাতে ভীত হইবার কারণ ছিল না;—তাহাদের সেনাবল অল্প; তাহারও কিয়দংশ বঙ্গোপসাগরে তরঙ্গতাড়িত হইয়া কোথায় ভাসিয়া গিয়াছে; যাহারা বঙ্গদেশে পদার্পণ করিয়াছিল, তাহারাও সকলে জীবিত নাই; আর যাহারা জীবিত, বাঙ্গালার জলবায়ু অল্পদিনের মধ্যই তাহাদিগকে জীবন্মৃত করিয়া ফেলিয়াছে। মহাবীর ক্লাইব সিরাজসেনার গতিরোধ করিতে গিয়া নিজেই পলায়ন করিতে বাধ্য হইয়াছিলেন![১] সুতরাং ইহাদের ভয়ে ভীত হইবার কারণ ছিল না;—তথাপি সিরাজদ্দৌলা সন্ধির জন্য ব্যাকুল হইয়াছিলেন কেন?

 সিরাজদ্দৌলা ইংরাজদিগকে ভাল মানুষ বলিয়া বিশ্বাস করিতেন না, তাঁহার বাল্যসংস্কারের সহিত যৌবনের অভিজ্ঞতা মিলিত হইয়া তাঁহাকে বুঝাইয়া দিয়াছিল যে, ইংরাজদমন করিতে না পারিলে সিংহাসন নিষ্কণ্টক হইবে না। নবাব আলিবর্দ্দীও অন্তিম সময়ে তাহাই বুঝাইয়া দিয়াছিলেন। সিরাজদ্দৌলা সে কথার ক্রমশঃ পরিচয় পাইতে লাগিলেন, এবং দিব্যনেত্রে ইংরাজের

  1. Colonel Clive marched with the greatest part of his troops, and six field pieces; as they approached, the enemy fired upon them from nine pieces of cannon, and several bodies of their cavalry drew up on each side of the garden, of which the attack appeared so hazardous, that Clive restrained the action to a connonade, which continued only an hour that the troops might regain the camp before dark.—Orme, ii. 130.