পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/৩৫৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৩৪১
কাটোয়াদুর্গ।

হইলেন। অজয় এবং ভাগীরথী সম্মিলনস্থানে কাটোয়াদুর্গ সুসংস্থাপিত; বর্গীয় হাঙ্গামার কাটোয়া-দুর্গ বীরবিক্রমের লীলাভূমি বলিয়া চিরবিখ্যাত। এবার কিন্তু দুর্গদ্বারে যুদ্ধ হইল না; কিয়ৎক্ষণ যুদ্ধাভিনয়ের পর নবাবসেনা স্বহস্তে চালে চালে আগুন ধরাইয়া দিয়া দুর্গ হইতে পলায়ন করিল! এই যুদ্ধাভিনয়ে নবাব-সেনা যতটুকু বীরবিক্রম প্রকাশ করিয়াছিল, তাহাতেই মেজর কূট ভাবিয়াছিলেন যে, সেনাপতি হয় ত পূর্ব্বসংকল্প পরিত্যাগ করিয়া যুদ্ধ করিতেই বদ্ধপরিকর হইয়াছেন। যাহা হউক কাটোয়া নির্মক্ষিক হইলে, ক্লাইব ধীরে ধীরে সসৈন্যে কাটোয়া অধিকার করিয়া লইলেন, নাগরিকগণ প্রাণভয়ে পলায়ন করায় এত চাউল ইংরাজের হস্তগত হইল যে, তাহাতে দশসহস্র সিপাহী বৎসর ভরিয়া উদরপূরণ করিতে পারিত। সুতরাং ক্লাইব সসৈন্যে কাটোয়ায় শিবির-সন্নিবেশ করিলেন।

 মীরজাফরের প্রথম পত্রেই ক্লাইবের মন আন্দোলিত হইয়া উঠিয়াছিল ওয়াট্‌স্ সাহেবের পূর্ব্বপ্রেরিত গুপ্তচর ফিরিয়া আসিয়া সন্দেহ আরও ঘনীভূত করিয়া তুলিল। আরও সংবাদ সংগ্রহের জন্য ক্লাইব দুই দিন পর্য্যন্ত সতৃষ্ণনয়নে পথ চাহিয়া রহিলেন।[১] কখন বিশ্বাস কখন অবিশ্বাসে আন্দোলিত হইয়া স্বভাবতই মনে হইতে লাগিল যে, গুপ্তসন্ধিপত্র হয়ত সিরাজদ্দৌলারই কৌশলমাত্র; হয়ত সখ্যসংস্থাপন করিয়া মীরজাফর পূর্ব্বকথা একেবারেই বিস্মৃত হইয়াছেন। সম্মুখে ভাগীরথী তরল তরঙ্গ-ভঙ্গে সমুদ্রাভিমুখে প্রবাহিত; এখনও বর্ষাসমাগম হয় নাই, সুতরাং এখনও নদীস্রোত উত্তীর্ণ হইবার সম্ভাবনা আছে। কিন্তু হায়! পরপারে উত্তীর্ণ হওয়া যত সহজ, পুনরায় প্রত্যাবর্ত্তন করা কি তত সহজ কথা? ক্লাইব হতবুদ্ধি

  1. Orme vol. ii. 169.