পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/৩৮৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৩৭০
সিরাজদ্দৌলা।

 পরিণাম ফল বড়ই উজ্জ্বল বলিয়া পলাশির যুদ্ধ এখন বৃটিশবাহিনীর মহাযুদ্ধের মধ্যে পরিগণিত হইয়াছে। যে সেনাদল পলাশিসমরে জয়লাভ করিয়াছিল, তাহাদের পতাকাশীর্ষে এখনও পলাশির নাম দেখিতে পাওয়া যায়।[১] কিন্তু যেরূপভাবে পলাশিক্ষেত্রে সিরাজসেনার পরাজয় সাধিত হইয়াছিল, তাহাতে ইহাকে প্রকৃত সমর বলিয়া বর্ণনা করা যায় না। সিরাজসেনা যেরূপ ভাবে ব্যুহ রচনা করিয়াছিল, সেইরূপ ভাবে সমরক্ষেত্রে দাঁড়াইয়া থাকিলেও তাহাদিগকে পরাজয় করা সম্ভব হইত না; তাহারা আম্রবণ বেষ্টন করিয়া বীরের ন্যায় যুদ্ধ করিলে ত কথাই ছিল না! রাজবিদ্রোহীদিগের কুমন্ত্রণায় সিরাজদ্দৌলা সমরক্ষেত্র পরিত্যাগ করিতে বাধ্য হইলে, রাজবিদ্রোহী দলের চক্রান্তে সিরাজসেনা তাহাদের অধিকৃত সংকেত ভূমি হইতে পৃষ্ঠ প্রদর্শন করিলে, এবং মীরজাফরাদির চক্রব্যুহ আত্মকার্য্য সাধন করিতে অগ্রসর না হইয়া ধীরে ধীরে শিবিরাভিমুখে গমন করিতে আরম্ভ করিল,—শূন্যক্ষেত্রের উপর দিয়া ইংরাজেরা সদর্পে অগ্রসর হইবার অবসর লাভ করিয়াছিলেন। এই সকল কথার আলোচনা করিয়া ইংরাজ বীরকেশরী মহামতি ম্যালিসন বলিয়া গিয়াছেন, ইহাকে প্রকৃত যুদ্ধ বলিয়া বর্ণনা করা যায় না।[২]পলাশির যুদ্ধভূমি ভাগীরথীগর্ভে বিলীন হইয়াছে; লক্ষবাগের শেষ আমবৃক্ষটিও সমূলে উৎখাত হইয়া বিলাতে চালান হইয়া

  1. Praise was more particularly given to the 39th Regiment which still bears on its banners the name of “Plassy", and the motto, Primus in Indis - Great battles of the British Army; p. 169.
  2. It was not a fair fight. Col Mallison.