পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/৪০৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৩৯১
ক্লাইবের কলঙ্ক।

সর্ব্বনাশ করিবেন, ক্লাবের সে বিষয়ে কিছুমাত্র সন্দেহের কারণ ছিল না। এই জন্যই সিরাজদ্দৌলাকে কারারুদ্ধ করা ক্লাইবের লক্ষ্য হইয়া উঠিয়াছিল, এই জন্যই প্রথম সন্দর্শনের শিষ্টাচার শেষ না হইতেই তিনি মীরজাফরকে উত্তেজনা করিয়াছিলেন, এবং বোধ হয় এই জন্যই তাঁহার উত্তেজনাক্রমে সিরাজ কারারুদ্ধ ও নির্দ্দয়রূপে নিহত হইলেও তদুপলক্ষে তিনি কোনরূপ ক্ষমা প্রার্থনা করা প্রয়োজন বলিয়া স্বীকার করেন নাই।

 ক্লাইব ইতিপূর্ব্বে মাদ্রাজে সেনাচালনা করিবার সময়েও ঠিক এইরূপ একটি দুর্ঘটনা সংঘটিত হইয়াছিল! ১৭৪৮ খৃষ্টাব্দে সুবিখ্যাত মুসলমান সুবেদার নিজাম উল্-মোল্‌কের পরলোকগমনের পর দাক্ষিণাত্যে তুমুল অন্তর্বিপ্লবের সূত্রপাত হয়। পরসাম্রাজ্যলিপ্‌সু রাজনীতিবিশারদ ফরাসি সেনাপতি দ্যুপ্লে বাহাদুর সেই অন্তর্বিপ্লবের ছিদ্রলাভ করিয়া কর্ণাটের নবাব এবং হায়দ্রাবাদের নিজামকে গৃহতাড়িত করিয়া চান্দা সাহেবকে কর্ণাটে এবং মীরজাফরকে হায়দ্রাবাদে রাজসিংহাসনে বসাইয়া দিয়া দাক্ষিণাত্যে ফরাসিরাজশক্তি সুদৃঢ় করিবার আশায় দ্যুপ্লেফতেহাবাদ নামে নগর পত্তন করিয়া তথায় এক অত্যুচ্চ বিজয়স্তম্ভ গঠন করেন। ইংরাজেরা তাঁহার গতিরোধ করিবার জন্য কর্ণাটের সিংহাসনপ্রার্থী মহম্মদ আলির পক্ষাবলম্বী হইয়া কর্ণেল ক্লাইবকেই সেনাচালনার ভার প্রদান করেন। ক্লাইব মহারাষ্ট্রবাহিনীর সহায়তা লাভ করিয়া, অল্পদিন মধ্যেই দ্যুপ্লেফতেহাবাদের জয়স্তম্ভ ধূলিসাৎ করিয়া ফেলিলেন; কিন্তু চান্দা সাহেব জীবিত থাকিতে রণকোলাহল শান্তিলাভ করিল না। ইহার কিছুদিন পরে ইংরাজ ও মহারাষ্ট্রবাহিনীর সমবেত অধ্যবসায়ে হতভাগ্য চান্দা সাহেব অকস্মাৎ কারারুদ্ধ হইয়া গোপনে নির্দ্দয়রূপে নিহত হইলেন। ক্লাইবের নামে কলঙ্ক রটনার সম্ভাবনা দেখিয়া তাঁহার স্বদেশীয় ইতিহাসলেখকেরা লিখিয়া গিয়াছেন,—“ক্লাইব ইহার কিছুই