পাতা:সিরাজদ্দৌলা - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/৪০৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৩৯৪
সিরাজদ্দৌলা।


সেই তারিখেই নিহত হন;[১] গোলাম হোসেন বলেন, সিরাজদ্দৌলা ৩রা জুলাই মুর্শিদাবাদে আনীত হইয়া সেই তারিখেই নিহত হন;[২] স্ক্রাফটন বলেন, সিরাজদ্দৌলা ৪ঠা জুলাই মুর্শিদাবাদে আনীত হইয়া সেই তারিখেই নিহত হন।[৩] সমসাময়িক ব্যক্তিদিগের মধ্যে এরূপ অনৈক্য দেখিয়া সহজেই তাহার কারণ অনুসন্ধান করিতে ইচ্ছা হয়। সিরাজদ্দৌলার মুর্শিদাবাদে আগমনও তাহার হত্যাকাণ্ড যে একদিনেই সংঘটিত হইয়াছিল এবং তজ্জন্যই কেহ কিছু জানিবার অবসর পান নাই, এই কথা বলিবার জন্য ব্যস্ত হইয়া ইহারা বিশেষ গোলযোগে পতিত হইয়াছেন।[৪]

 সিরাজদ্দৌলাকে যখন মুর্শিদাবাদে আনয়ন করিল, তখন তাহাকে পশ্চিমতীরবর্তী হিরাঝিলের রাজপ্রাসাদে মীরজাফরের নিকট উপনীত করাই সম্ভব, না তাহাকে পূৰ্ব্বতীরবর্তী মীরণের রাজবাটীতে আনয়ন করাই সম্ভব? যাহারা ক্লাইবের দোষক্ষালনের জন্য ব্যাকুল, তাহারা বলেন যে, সিরাজকে আদৌ পশ্চিমতীরে আনয়ন করা হয় নাই, সুতরাং ক্লাইবাহার আগমন- সংবাদও জানিতে পারেন নাই। প্রকৃতপক্ষে সিরাজদ্দৌলাকে কোথায় আনয়ন করিয়াছিল, তাহার উপরেই প্রকৃত তর্ক নির্ভর করিতেছে। অৰ্ম্মি-

  1. Clive's Evidence,
  2. মুক্ষীণ।
  3. Scrafton's Reflections.
  4. নবাবী আমলের বাঙ্গালার ইতিহাসে বন্দ্যোপাধ্যায় মহাশয় লিখিয়াছেন: “মুতক্ষরণের মতানুসরণ করিয়া আমরা সিরাজের হত্যাকাণ্ড লিপিবদ্ধ করিলাম। মুতরীণ লেখক যখন গ্রন্থ রচনা করেন তখন তিনি কোম্পানী বাহাদুরের পেন্সন- ঙ্গেী সরকারী লেখক ছিলেন। নানা কারণে ইহার নিকট সিরাজদ্দৌলা সুবিচার লাভ করেন নাই;—মীরজাফরও কৃতকার্যের জন্য তিরস্কৃত হন নাই। মুতক্ষরণের মতানুসরণ করা সকল স্কুলে সত্য নির্ণয়ের উৎকৃষ্ট পন্থা বলিয়া বোধ হয় না।