পাতা:সুকথা - দীনেশচন্দ্র সেন.pdf/৩৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৩১
সুকথা

অঙ্গুরীয়ক একজন দূতের হস্তে প্রদান করিয়া তাহাকে বণিকের বাটীতে পাঠাইয়া দিলেন, দূতকে শিখাইয়া দিলেন সে যেন সেই অঙ্গুরী বণিকের বাটীর হিসাবপত্ররক্ষক কর্ম্মচারীর হস্তে প্রদান করিয়া বলে যে, বণিক্‌ তাহাকে সত্বর পাঠাইয়া দিয়াছেন; বণিকের অনুজ্ঞাক্রমে সেই ব্রাহ্মণের বাটী বিক্রয় করিবার তারিখ হইতে সমস্ত হিসাব পত্র এখনই তাহার নিকট দিতে হইবে। দূত রাজার আদেশানুসারে সেই বণিকের নাম করিয়া কর্ম্মচারীকে অঙ্গুরীয়ক প্রদান করিল এবং হিসাবপাত্রের জন্য তথায় অপেক্ষা করিতে লাগিল। কর্ম্মচারী প্রভুর করাচিহ্ন অঙ্গুরী প্রাপ্ত হইয়া নিঃসন্দেহে সমস্ত হিসাবপত্র দূতের হস্তে অর্পণ করিল।

 রাজা নিভৃত কক্ষে স্বয়ং সেই হিসাব