প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:হরিলক্ষ্মী.djvu/১৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
হরিলক্ষ্মী

 মেজবৌ কহিল, আজ তিনি বাড়িতে আছেন।

 আজ কেন তবে আর একটু ব’সো না?

 মেজবৌ বসিল না, কিন্তু যাবার জন্যও পা বাড়াইল না। আস্তে আস্তে বলিল, দিদি, আপনার কত শিক্ষা-দীক্ষা, কত লেখা-পড়া, আমি পাড়াগাঁয়ের—

 তোমার বাপের বাড়ি বুঝি পাড়াগাঁয়ে?

 হাঁ দিদি, সে একেবারে অজ পাড়াগাঁয়ে। না বুঝে কাল হয় ত কি বল্‌তে কি ব’লে ফেলেছি, কিন্তু অসম্মান করার জন্যে—আপনি যে দিব্যি করতে বল্‌বেন, দিদি—

 হরিলক্ষ্মী আশ্চর্য্য হইয়া কহিল, সে কি মেজবৌ, তুমি ত আমাকে এমন কথাই বল নি!

 মেজবৌ এ কথার প্রত্যুত্তরে আর একটা কথাও কহিল না। কিন্তু ‘আসি’ বলিয়া পুনশ্চ বিদায় লইয়া যখন সে ধীরে ধীরে বাহির হইয়া গেল, তখন কণ্ঠস্বর যেন তাহার অকস্মাৎ আর এক রকম শুনাইল।

 রাত্রিতে শিবচরণ যখন কক্ষে প্রবেশ করিলেন, তখন হরিলক্ষ্মী চুপ করিয়া শুইয়া ছিল, মেজবৌয়ের শেষের কথাগুলা

১৪