পাতা:১৫১৩ সাল.pdf/৬২

এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৪৯
১৫১৩ সাল।

 যথানিয়মে কার্য্য আরম্ভ করিবার দিনধার্য্য ও অন্যান্য আনুসঙ্গিক বিষয় নির্দ্দেশ করিবার উদ্দেশ্যে তাহার পরদিন আমরা সভা আহবান করিলাম।

 যথাসময়ে কার্য্য আৱম্ভ হইল। সর্ব্বসম্মতিক্ৰমে বন্ধুবরকে সভাপতি পদে বরণ করা হইল। সভার প্রথম কার্য্য—হাসানজী কোম্পানীর বিল শোধ করা। তাঁহাদের প্রধান অংশীদার উপস্থিত ছিলেন; বিলখানি বিশলক্ষ টাকার। চুক্তি কিন্তু ছিল পনের লক্ষের। একজন অংশীদার এই পার্থক্যেরকারণ জিজ্ঞাসা করিলেন।

 বন্ধুবর ঈষৎ হাস্য করিয়া বলিলেন:—

 “এই যে অতিরিক্ত টাকা দেখিতেছেন উহা একখানি সবমেরিন্ বোট্ ক্রয় বাবত পড়িয়াছে—”

 “সেকি? সবমেরিন্ বোট্ কি হইবে?”

 “যখন কোম্পানী স্থাপন করি, তখন ঐ বোট কিনিবার কোন আবশ্যকতা দেখি নাই। কিন্তু আমাদের কোন পরম হিতৈষী বন্ধুর হস্ত হইতে আত্মরক্ষার জন্য ইহা ক্রয় করিতে বাধ্য হইয়াছি। তাঁহার নাম উল্লেখ করিবার কোন আবশ্যকতা নাই, কেন না তাঁহাকে আপনারা সকলেই জানেন। অতএব আমি আশা করি এই অতিরিক্ত ব্যয়টা আপনারা পাস করিয়া দিবেন।”

 সকলেই একবাক্যে বলিয়া উঠিলেন, “নিশ্চয়ই, নিশ্চয়ই।”

 “আমি আর একটা অতিরিক্ত খরচার হিসাব দেখাইয়া দিতে ইচ্ছা করি। আপনারা তাহা লক্ষ্য করিয়াছেন কিনা জানি না। একটা তারহীন-বার্ত্তা-প্রেরণ-যন্ত্রের বাবত হাসানজী কোম্পানী ২০০০০ টাকা মাত্র চাহিয়াছেন। ইহা পূর্ব্বে ধরা ছিল না। কিন্তু ইহার আবশ্যকতা যে কত, তাহা বোধ হয় আপনাদিগকে বুঝাইয়া বলিতে হইবে না। আমি প্ৰস্তাব করি, আপনারা এই বিল একবাক্যে মঞ্জুর করুন।”