পাতা:১৯০৫ সালে বাংলা.pdf/১১৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


| ۰ ۰ د] দিবালোকে, সমস্ত সহরের লোকের সম্মুখে ডিষ্ট্রক্ট ও আসিষ্টান্ট সুপারিণ্ডেন্টের আদেশে পুলিশ সভাপতি মিঃ রকুলের অভ্যর্থনার জন্য সমবেত প্রতিনিধিদের উপর অবৈধভাবে লাঠি চালাইয়াছে এবং দেশবাসীর নেতা বাৰু স্বরেন্দ্রনাথকে বিন কারণে এরূপভাবে কয়েদ করিয়াছে, তাহাতে প্রতিপন্ন হয় যে, বরিশালে আইনসঙ্গত শাসনপ্রণালী বিলুপ্ত হইয়াছে। যেহেতু পূৰ্ব্ববাঙ্গাঙ্গা ও আসামের নানা স্থানের লোক স্বদেশসেবা করার অপরাধে প্রহৃত ও নানারূপে নিগৃহীত হইয়াছে, ভজন্ত এই সমিতি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করেন যে, এই প্রদেশে আর বৈধ শাসনপ্রণালী প্রচলিত নাই; সুতরাং নিজের শক্তির যে সকল কাৰ্য্য নির্ভর করে, বৰ্ত্তমান বর্ষের সমিতি কেবল সেই সকল প্রস্তাবের আলোচনা করিবেন। বর্তমান দায়িত্বশূন্ত গবর্ণমেন্টের উপর যে সকল কার্ধ্যের মীমাংসার ভার অাছে, বৰ্ত্তমান বর্ষের সমিতি তাহার আলোচনা হইতে ক্ষাস্ত থাকিবেন । এই প্রস্তাব সর্বসম্মতিক্রমে পরিগৃহীত হইলে সেদিনকার মত সভা ड छी इग्न । দ্বিতীয় দিবস । অস্ত সহরে গুজবে অস্ত নাই । কেহ বলিল, আজ প্রতিনিধিগণ রাস্তায় শ্রেণীবদ্ধ হইয়া বাহির হইলেই পুলিশ গুলি চালাইবে । কেহ বলিল, রাস্তায় যে বন্দে মাতরম্ বলিবে, তাহাকেই পুলিশ গুলি করিবে বলিতেছে। এমন কি গুজব