পাতা:এই কি ব্রাহ্ম বিবাহ - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৮: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(Text from Google OCR)
 
পাতার অবস্থাপাতার অবস্থা
-
মুদ্রণ সংশোধন করা হয়নি
+
মুদ্রণ সংশোধন করা হয়নি
শীর্ষক (অন্তর্ভুক্ত হবে না):শীর্ষক (অন্তর্ভুক্ত হবে না):
১ নং লাইন: ১ নং লাইন:
{{c|( ৬ )}}
পাতার প্রধান অংশ (পরিলিখিত হবে):পাতার প্রধান অংশ (পরিলিখিত হবে):
১ নং লাইন: ১ নং লাইন:
প্রবৃত্ত হইয়াছিলেন। আমরা জানি কন্যার বিবাহে তাঁহার অত্যন্ত উপেক্ষা ছিল এবং তিনি এত গুরুতর ব্যাপারে সর্বদা নিশ্চিন্ত থাকিতেন এক দিনের জন্যও তিনি পাত্রানুসন্ধান করিতে ব্যস্ত হন নাই। ঘটনাক্রমে ঈশ্বর যখন পাত্ৰ আনিয়া উপস্থিত করিলেন, তিনি তাহা অকুণ্ঠিত ভাবে গ্রহণ করিলেন। তিনি ফলবাদী নহেন, সুতরাং ফলের দিকে দৃষ্টি করেন নাই।” পাত্ৰটী ঈশ্বরানীত! কারণ {{AC|কেশবচন্দ্র সেন|কেশব বাবু}} পাত্র অন্বেষণ করিতে যান নাই, আপনি আসিয়াছে। পাঠকগণ হয় ত জানেন, যে কেশব বাবুর কন্যার সহিত বিবাহের প্রস্তাব হইবার পূৰ্ব্বে এই পাত্রেরই জন্য মান্দ্রাজে কন্যা দেখা হয়; কলিকাতার অপর তিন জন ব্রাহ্মের কন্যার সহিত ও পূৰ্ব্বে কথা হয়। তাঁহারা বিশ্বাস ও সংস্কারের বিরুদ্ধ কাৰ্য্য করিতে অস্বীকৃত হওয়াতে পরে কেশব বাবুর নিকট প্রস্তাব উপস্থিত হয়। পূৰ্ব্বোক্ত ব্যক্তিদিগেরও ত নিকট পাত্র উপযাচক হইয়া গিয়াছিল। তবে কি এই বলিব যে ঈশ্বর পাত্রটী লইয়া দ্বারে দ্বারে ফিরিয়া দেখিলেন সকলেই বড় শক্ত অবশেষে কেশব বাবুর নিকট আসিয়া কৃতকাৰ্য্য হইলেন!!! আর এই পাত্রে কন্যা দিব কি না এরূপ প্রশ্নের সঙ্গে বিবেকের কি সম্বন্ধ আমরা বুঝিতে পারি না। আর যেন ভাবিলাম যে ঈশ্বর পাত্ৰটী আনিলেন এবং এই পাত্রে কন্যা দিতে বলিলেন। ঈশ্বর বলিলেন “এই পাত্রে কন্যা দাও”। বেশ কথা! তিনি কি এরূপ ও বলিলেন, যদি গবর্ণমেণ্ট চাপাচাপি করে বয়সের নিয়ম ছাড়িয়া দাও; যদি তোমাকে একঘরে বলিয়া সম্প্রদানে আপত্তি করে {{hws|কৃষ্ণ-|কৃষ্ণবিহারীকে}}
( و )
প্রবৃত্ত হইয়াছিলেন। আমরা জানি কন্যার বিবাহে তাহার অত্যন্ত উপেক্ষ ছিল এবং তিনি এত গুরুতর ব্যাপারে সর্বলে নিশ্চিন্ত থাকিতেন এক দিনের জন্যও তিনি পাত্রাঙ্গুসন্ধান করিতে ব্যস্ত হন নাই । ঘটনাক্রমে ঈশ্বর যখন পাত্ৰ আনিয়া উপস্থিত করিলেন, তিনি তাহা অকুষ্ঠিত ভাবে গ্রহণ করিলেন। তিনি ফলবাদী নহেন, সুতরাং ফলের দিকে দৃষ্টি করেন নাই ।” পাত্ৰটী ঈশ্বরানীত কারণ কেশব বাবু পাত্র অন্বেষণ করিতে যান নাই, আপনি আসিয়াছে। পাঠকগণ হয় ত জানেন, যে কেশব বাবুর কন্যার সহিত বিবাহের প্রস্তাব হইবার পূৰ্ব্বে এই পাত্রেরই জন্ত মান্দ্রাজে কন্যা দেখা হয় ; কলিকাতার অপর তিন জন ব্রাহ্মের কন্যার সহিত ও পূৰ্ব্বে কথা হয়। র্তাহার। বিশ্বাস ও সংস্কারের বিরুদ্ধ কাৰ্য্য করিতে অস্বীকৃত হওয়াতে পরে কেশব বাবুর নিকট প্রস্তাব উপস্থিত হয়। পূৰ্ব্বোক্ত ব্যক্তিদিগেরও ত নিকট পাত্র উপযাচক হইয়া গিয়াছিল। তবে কি এই বলিব যে ঈশ্বর পাত্রটা লইয়া দ্বারে দ্বারে ফিরিয়া দেখিলেন সকলেই বড় শক্ত অবশেষে কেশব বাবুর নিকট আসিয়া কৃতকাৰ্য্য হইলেন!! আর এই পাত্রে কন্যা দিব কি ন। এরূপ প্রশ্নের সঙ্গে বিবেকের কি সম্বন্ধ আমরা বুঝিতে পারি না। আর যেন ভাবিলাম যে ঈশ্বর পাত্ৰটী আনিলেন এবং এই পাত্রে কন্যা দিতে বলিলেন। ঈশ্বর বলিলেন “এই পাত্রে কন্য; দাও”। বেশ কথা ! তিনি কি এরূপ ও বলিলেন, যদি গবর্ণমেণ্ট চাপাচাপি করে বয়সের নিয়ম ছাড়িয়া দাও ; যদি তোমাকে একঘরে বলিয়া সম্প্রদানে আপত্তি করে কৃষ্ণ