প্রধান মেনু খুলুন

ভাগ্য-বিড়ম্বিত লেখক-সম্প্রদায়

ভাগ্য-বিড়ম্বিত লেখক-সম্প্রদায় সেদিন গুনে দেখলাম—সত্যিকার সাধন ধারা করেন, সাহিত্য ৰাজের গুৰু বিলাস নয়, সাহিত্য ধাদের জীবনে একমাত্র ব্রত, বাংলাদেশে তার ক'জনই বা, সংখ্যা আঙুলে গোনা যায়। এইসব সাহিত্যসেবী অক্লাস্ত পরিশ্রম করে অনাহারে অনিদ্রায় দেশের জন্ত দশের জষ্ঠ সাহিত্য-স্বষ্টি করেন, সে সাহিত্য গুনেচি না কি জন-সমাজের কল্যাণ করে, কিন্তু তার কি মূল্য আমরা দিয়ে থাকি ? - এই ষে সব সাহিত্যিক দেশের জন্য প্রাণপণ করেচেন, তাদের পুরস্কার হয়েচে গুৰু লাঞ্ছনা আর দারিদ্র্য। প্রভূত ধন-সম্পত্তি অর্জন করে বিত্তশালী ধনবান হতে তার চান না, তারা চান শুধু একটুখানি স্বচ্ছন জীবন, সৰ্ব্বনাশা দারিত্র্যের নিদারুণ অভিশাপ থেকে মুক্তি, তারা চান শুধু নিশ্চিত নির্ভাবনায় লিখবার মত একটুখানি অমুকুল আবহাওয়া, অথচ তারা তাও পান না। আজীবন শুধু ভাগ্য-বিড়ম্বিত হয়েই তাদের কাটাতে হয়, যাদের কল্যাণ-কামনায় তারা জীবন উৎসর্গ করলে তারা একবার সেদিকে ফিরেও তাকায় না । দেশের লোক তাদের দেয় না কিছু, অথচ, তাদের কাছে থেকে চায় অনেক। কোথাও কেউ দি এতটুকু খারাপ লেখা লিখেচে, অমনি তীব্র সমালোচনার বিষে আর নিষ্কার তীক্ষ শরে তাকে জর্জরিত হতে হয়। এই অতিনিন্দ্বিত গল্প-লেখকদের দৈন্তের সীমা নেই। এদের লেখা পড়ে জনসাধারণ আনন্দ লাভ করে সত্য, কিন্তু তাদের ঘরের খবর নিতে গেলে দেখতে পাবেন—এইসব লেখক-সম্প্রদায় কত নিঃস্ব, কত অসহায় । অনেকেরই উপন্যাসের হয়ত দ্বিতীয় ज९कब्र* इब्र नीं । কিন্তু কেন ? এর একমাত্র কারণ, আমাদের দেশের লোক বই পড়েন বটে, কিন্তু পরসা খরচ করে কিনে পড়েন না। এমন কথা হয়ত উঠতে পারে যে, আমাদের দেশের জনসাধারণ দরিদ্র, বই কেনবার সামর্থ্য তাদের নেই। কিন্তু সামর্থ্য ধাদের আছে, এমন অনেক বড়লোকের বাড়িতে আমি নিজে গেছি। গিয়ে দেখেচি, তাদের আছে সবই, গাড়ি আছে, বাড়ি আছে, বিলাস-ব্যসনের সহস্ৰ উপকরণ আছে, নেই কেৰল বই। পয়সা খরচ করে বই কেনা তাদের অনেকের কাছেই অপব্যয় ছাড়া আর কিছু নয়। অথচ গল্প-লেখকদের বিরুদ্ধে অভিযোগের আর অন্ত নেই । লম্প্রতি একটা কৰা

  • जबकांनिड ब्रध्नावर्णी

छबकि, उगंज cणषां ॐीब्र णिवरकन ब ।। ८कन जिवदछन बां चांबांधक पश् ि८कडे ●यञ्च DDD D DBB DDDS DD DDD DD DDD DDDD DBBDDD DDDD DDD তারা এমনি নিষ্পেষিত ৰে, ভাল কিছু লেখবার ইচ্ছা থাকলেও অবসর বা শূহ उँदृषद्ध cनरें। ७ब्र अठिकांब्र जर्कांटब «थ८ब्रांजन । जर्कांटम यांमांtगब्र cष८थब्र जांदिछिाकदृषब्र DDDSBBDD BBD DDB BBS BB BB DDDD DDD DDD DD DD আহুকুল আবহাওয়ার স্বটি করতে হৰে। তবেই বাঙলা-সাহিত্য বাঁচবে, নইলে অচির ভবিষ্যতে কি ষে তার অবস্থা হবে, ভগবানই জানেন । আমাদের দেশের বড়লোকেরা অন্ততঃ কৰ্ত্তব্যের খাতিরেও যদি একখানা করে বই কেনেন তা হলেও বা এর প্রতিকারের কিছু ব্যবস্থা হয়। বই না কিনেও অনেক রকম্বে র্তার সাহায্য করে বাঙলা সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করে ভুলতে পারেন। কিন্তু তা তারা করবেন কি ? আগেকার দিনে বড় বড় রাজরাজড়ার সভা-কবি রেখে কৰি সাহিত্যিকের বৃত্তির ব্যবস্থা করে অনেক রকমে দেশের সাহিত্যকে বড় হবার স্বৰোগ দিতেন। তাও নেই। ** সখের সাহিত্যিকদের কৰা আমি বলচি না । ভগবানের কৃপায় জয়ের সংস্থান ধানের আছে, সাহিত্য ধাদের বিলাসের সামগ্ৰী, তাদের কৰা স্বতন্ত্র। তারা হয়ত বলবেন --অল্পচিন্তাটা ভালগার, সুতরাং সাহিত্যের স্ত্রী ওতে নষ্ট হবে, সে চিন্তা পরে করলেও চলবে । পরে চিন্তা করলে ধারে চলে তারা তাই করুন, তাদের কৰা ভুলব না। আমি গুৰু সেই-সব স্বর্তাগায়ের কৰাই বলচি–ৰাদের অস্থিতে মজার সাহিত্যের অত্যুঞ্জ বিষের ক্রিয়া শুরু হয়েচে, সাহিত্যস্থষ্টি ষায়ের জন্মগত-অধিকার, বায়ের রক্তের মধ্যে স্বাক্টর উন্মানা। এইসব উন্মাদের সহস্ৰ আৱিষ্য-লাঞ্ছনার মধ্যে বলেও লিখবে আমি জানি । না লিখলে তারা বাচবে না। তাই স্বতদিন তারা বেঁচে থাকে তাদের ऋष इ-मूर्छी श्रब छूरण रिटङ फ्रारे। बरे-णव नबाट4 खे९गर्शीकृङ बौवप्नब्र निषा অন্নাভাবে অকালে যদি নির্বাপিত হয়ে ৰায়—দেশের কল্যাণ তাতে হবে না, এইটুকুই আপনারা জেনে রাখুন।* —‘ৰাতায়ন’, ২৭এ কাণ্ডন, ১৩se, শরৎশক্তি-সংখ্যাঙ্গ S gDDDBTSB BB KDD DDDBDSADDD DDDDD DD DD DDD SDSDDDDD DY DBDS DgDS HHBBA S DD BBBBD BBB BBB BB DD DD DBBD DBD DDD •ә¥