শকুন্তলা (ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর)


 

A

 

TALE

 

FROM

 

THE SAKUNTALA OF KALIDASA

 

 

BY

 

ESHWAR CHANDRA VIDYASAGAR

 

 

Calcutta

 

PRINTED AT THE SANSKRIT PRESS

 

1854.

 

শকুন্তলা

 

কালিদাস প্রণীত অভিজ্ঞানশকুন্তল নাম নাটকের

 

উপাখ্যান ভাগ

 

 

শ্ৰীঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর কর্ত্তৃক

 

বাঙ্গলাভাষায় সঙ্কলিত

 

 

কলিকাতা

 

সংস্কৃত যন্ত্রে মুদ্রিত

 

সংবৎ ১৯১১

 

বিজ্ঞাপন

 

 ভারতবর্ষের সর্বপ্রধান কবি কালিদাসপ্রণীত শকুন্তলা সংস্কৃতভাষায় সৰ্ব্বোৎকৃষ্ট নাটক। এই পুস্তকে সেই সৰ্ব্বোৎকৃষ্ট নাটকের উপাখ্যান ভাগ সঙ্কলিত হইল। এই উপাখ্যানে মূল গ্রন্থের অলৌকিক চমৎকারিত্ব সন্দর্শনের প্রত্যাশা করা যাইতে পারে না। যাঁহারা সংস্কৃতে শকুন্তলা পাঠ করিয়াছেন এবং এই উপাখ্যান পাঠ করিবেন চমৎকারিত্ব বিষয়ে এ উভয়ের কত অন্তর তাহা অনায়াসে বুঝিতে পরিবেন এবং সংস্কৃতানভিজ্ঞ পাঠকবর্গের নিকট কালিদাসের ও শকুন্তলার এইৰূপে পরিচয় দিলাম বলিয়া মনে মনে কত শত বার আমার তিরস্কার করিবেন। বস্তুতঃ বাঙ্গলায় এই উপাখ্যান সঙ্কলন করিয়া আমি কালিদাসের ও শকুন্তলার অবমাননা করিয়াছি। অতএব হে পাঠকবর্গ! আপনাদের নিকট আমার প্রার্থনা এই আপনার যেন এই শকুন্তলা দেখিয়া কালিদাসের শকুন্তলার উৎকর্ষ পরীক্ষা না করেন।

শ্ৰীঈশ্বরচন্দ্রশৰ্ম্মা।  
 

কলিকাতা। সংস্কৃত কালেজ।
২৫এ অগ্রহায়ণ। ১৯১১ সংবৎ।

অশুদ্ধিশোধন।

পৃষ্ঠা

১২
২৩
২৩
২৮
৩৪
৩৫
৪২
৫০
৫৮
৬২
৬২
৭১
৭৪
৮৯
৯১
৯৪
৯৫

পংক্তি
১৫
১৭

১৬

১১


১০
১৫

১৯
১২
২০
১৮


১৭

অশুদ্ধ
আশ্রমবাসিদিগের
প্রাভাত
শীরর
নদী বেগপ্রভাবে
তপস্বির
একান্ত অভিলাষী
তপোবনবাসিরা
কহিতে
পুরষ্কার
যাহার
ভাগ্যে থাকে অধিক হইবেক
বৎস!
কহিতেছন
বিস্ময়াবিষ্ট
মৎস্যর
চিত্রণৈপুণ্যের
দেবরাজ!
দেখ

শুদ্ধ
আশ্রমবাসীদিগের
প্রভাত
শরীর
নদীবেগপ্রভাবে
তপস্বীর
অভিলাষী
তপোবনাসীরা
মনে মনে কহিতে
পুরস্কার
যাঁহার
অধিক ভাগ্যে থাকে ঘটিবেক
বৎসে!
কহিতেছেন
কিঞ্চিৎ কেপিবিষ্ট
মৎসের
চিত্ৰনৈপুণ্যের
দেবরাজ
দেখুন




এই লেখাটি ১ জানুয়ারি ১৯২৬ সালের পূর্বে প্রকাশিত এবং বিশ্বব্যাপী পাবলিক ডোমেইনের অন্তর্ভুক্ত, কারণ উক্ত লেখকের মৃত্যুর পর কমপক্ষে ১০০ বছর অতিবাহিত হয়েছে অথবা লেখাটি ১০০ বছর আগে প্রকাশিত হয়েছে ।