শান্তির স্বপক্ষে/সেই মেয়েটি


সেই মেয়েটি

এলোকেশী সে মেয়েকে দেখলাম
জ্বলন্ত আগুনের ভেতর পা ফেলে ফেলে হাঁটছে
হাঁটছেত হাঁটছেই………
পাহাড় পর্ব্বত ডিঙিয়ে, সাগর অরণ্য পেরিয়ে
কাল থেকে কালান্তরে হাঁটছে।
চলতে চলতে দেখলাম
বোশেখী ঝড়ের মত হাততালি দিয়ে
সে মেয়ে—
হা-হা-হা করে হাসছে
হাসছেত হাসছেই…
হাসতে হাসতে পথ পরিক্রমায়
ফোটাচ্ছে মুক্তির ফুল
অন্ধকারের কুঁড়ি ছিঁড়ে ছিঁড়ে।
এপারে, ওপারে
নগরে প্রান্তরে
এশিয়ায়, আফ্রিকায় দেশে দেশান্তরে
তারি পদধ্বনি
আমি দিবারাত্রি
কান পেতে শুনি।