খেলা


মনে পড়ে সেই আষাঢ়ে
ছেলেবেলা
নালার জলে ভাসিয়েছিলেম
পাতার ভেলা।
বৃষ্টি পড়ে দিবস-রাতি,
ছিল না কেউ খেলার সাথি,
একলা বসে পেতেছিলেম
সাধের খেলা।
নালার জলে ভাসিয়েছিলেম
পাতার ভেলা॥

হঠাৎ হল দ্বিগুণ আঁধার।
ঝড়ের মেঘে
হঠাৎ বৃষ্টি নামল কখন
দ্বিগুণ বেগে।
ঘােলা জলের স্রোতের ধারা
ছুটে এল পাগল-পারা,
পাতার ভেলা ডুবল নালার
তুফান লেগে—
হঠাৎ বৃষ্টি নামল যখন
দ্বিগুণ বেগে॥

সেদিন আমি ভেবেছিলেম
মনে মনে,
হতবিধির যত বিবাদ
আমার সনে।
ঝড় এল যে আচম্বিতে
পাতার ভেলা ডুবিয়ে দিতে
আর কিছু তার ছিল না কাজ
ত্রিভুবনে।
হতবিধির যত বিবাদ
আমার সনে॥

আজ আষাঢ়ে একলা ঘরে
কাটল বেলা।
ভাবতেছিলেম এতদিনের
নানান খেলা।
ভাগ্য-’পরে করিয়া রােষ
দিতেছিলেম বিধিরে দোষ—
পড়ল মনে নালার জলে
পাতার ভেলা।
ভাবতেছিলেম এতদিনের
নানান খেলা॥

৩২ জ্যৈষ্ঠ