৫৬

ওগাে  শােনাে কে বাজায়।
বনফুলের মালার গন্ধ বাঁশির তানে মিশে যায়।
অধর ছুঁয়ে বাঁশিখানি  চুরি করে হাসিখানি—
বঁধূর হাসি মধুর গানে প্রাণের পানে ভেসে যায় ।

কুঞ্জবনের ভ্রমর বুঝি বাঁশির মাঝে গুঞ্জরে,
বকুলগুলি আকুল হয়ে বাঁশির গানে মুঞ্জরে
যমুনারই কলতান  কানে আসে, কাঁদে প্রাণ—
আকাশে ওই মধুর বিধু কাহার পানে হেসে চায়।