১০৪

কেমন করে তড়িৎ-আলােয়
দেখতে পেলেম মনে’
তােমার বিপুল সৃষ্টি চলে
আমার এই জীবনে।
সে সৃষ্টি যে কালের পটে
লােকে লােকান্তরে রটে,
একটু তারি আভাস কেবল
দেখি ক্ষণে ক্ষণে॥


মনে ভাবি, কান্নাহাসি
আদর-অবহেলা
সবই যেন আমায় নিয়ে
আমারি ঢেউ-খেলা।
সেই আমি তাে বাহনমাত্র,
যায় সে ভেঙে মাটির পাত্র,
যা রেখে যায় তােমার সে ধন
রয় তা তােমার সনে॥

তােমার বিশ্বে জড়িয়ে থাকে
আমার চাওয়া পাওয়া।
ভরিয়ে তােলে নিত্যকালের
ফাল্গুনেরই হাওয়া।
জীবন আমার দুঃখে সুখে
দোলে ত্রিভুবনের বুকে,
আমার দিবানিশির মালা
জড়ায় শ্রীচরণে॥

আপন-মাঝে আপন জীবন
দেখে যে মন কাঁদে।
নিমেষগুলি শিকল হয়ে
আমায় তখন বাঁধে।
মিটল দুঃখ, টুটল বন্ধ—
আমার মাঝে, হে আনন্দ,
তােমার প্রকাশ দেখে মােহ
ঘুচল এ নয়নে॥

৯ কার্তিক [১৩২১]

সন্ধ্যা

এলাহাবাদ