ধূলি।

অয়ি ধূলি, অয়ি তুচ্ছ, অয়ি দীনহীনা,
সকলের নিয়ে থাক নীচতম জনে
বক্ষে বাঁধিবার তরে;-সহি’ সর্ব্ব ঘৃণা
কারে নাহি কর ঘৃণা। গৈরিক বসনে
হে ব্রতচারিণী তুমি সাজি উদাসীন
বিশ্বজনে পালিতেছ আপন ভবনে।

নিজেরে গোপন করি’, অয়ি বিমলিনা,
সৌন্দর্য্য বিকশি তােল বিশ্বের নয়নে;-
বিস্তারিছ কোমলতা, হে শুষ্ক কঠিনা,
হে দরিদ্রা, পূর্ণা তুমি রত্নে ধান্যে ধনে!
হে আত্মবিস্মৃতা, বিশ্ব-চরণ-বিলীনা,
বিস্মৃতেরে ঢেকে রাখ অঞ্চল বসনে।
নূতনেরে নির্ব্বিচারে কোলে লহ তুলি,
পুরাতনে বক্ষে ধর, হে জননী ধূলি!

১৫ ফাল্গুন,
১৩০২।