তুমি

তুমি নর, তুমি নারী,-
যুবক, বালক, বালা;
তুমিই আবার লাঠি হাতে ধরি’
বুড়া হ’য়ে হও আলা!
তুমি আছ চারিদিকে,
চারিদিকে তব মুখ;
তুমিই আবার জন্ম লইয়া
জানি কি পাও সুখ!
নীল পতঙ্গ তুমি,
রাঙা-আঁখি তুমি শুক,
বিদ্যুভরা মেঘ তুমি, প্রভু!
সাগর, সমুৎসুক!
অনাদি তােমার নাম,
অন্ত তােমার নাই;
তুমি আছ বলে বিশ্বভুবন
বর্ত্তিয়া আছে তাই।

শ্বেতাশ্বতরােপনিষৎ।