তীর্থরেণু/দান-পুণ্য

দান-পুণ্য


ক্ষুধার সৃষ্টি করে নি দেবতা নরের নিধন তরে,
খাদ্য পেয়ের শ্রাদ্ধ যে করে সেও এক দিন মরে।
বিহিত বিধানে দান করি’ দাতা কখনাে হয় না দীন,
কৃপণই কেবল পায় না শান্তি চির-আনন্দ-হীন।

ক্ষুধাতুর যবে অন্নের লাগি অনুবানের দ্বারে
হয় উপনীত, তখন যদি সে গৃহের কর্ত্তা তারে
ফিরাইয়া দ্যান্‌ কঠিন হৃদয়ে, কিবা তার আগে ভাগে
নিজের তুষ্টি করেন সাধন, তাঁরে সন্তাপ লাগে।

আতুরে অন্ন দান করে যেই তারে পূজা করে সবে,
দান-যজ্ঞের পুণ্য সে পায় অরির (ও) শ্রদ্ধা লভে;
বন্ধু হয়ে যে বন্ধুজনেরে অন্ন না করে দান,
সে নহে বন্ধু, তার গৃহ নয় মাথা রাখিবার স্থান।

তাহারে ছাড়িয়া সন্ধান কর উদার জনের ঘর,
আপন জনের চেয়ে সে আপন হ’ক সে হাজার পর।
অর্থীজনের দীন প্রার্থনা যে পার পূরণ কর,
সমুখে সরল পথ নিরমল যে পার সে পথ ধর।

ধন বৈভব,-হায় গাে সে সব চক্রের মত ঘােরে,
কখনাে তােমার, কখনাে আমার; স্থির নয় কারাে ঘরে।
হীন মন যার,-নহেক উদার অন্ন তাহার কাল,
দেবতা তােষেনা বন্ধু পােষে না ঘরে ভরে জঞ্জাল;

একাকী যে জন ভোগ করে ধন একা সে ভুঞ্জে পাপ,
ধরার অন্ন হরণ করিয়া একা বহে সন্তাপ।

ভিক্ষু ঋষি।