ধর্ম্ম

শাস্ত্রের প্রদীপ নহি, নহি আমি ধৰ্ম্মের নিশান,
সিদ্ধ মহাপুরুষের সিদ্ধির অপূর্ব্ব অবদান
তুচ্ছ মানি,—সাধারণ দুঃখ কাহিনীর তুলনায়;
মানুষের অশ্রুজলে, মানুষের মৌন শোচনায়
আমারে আকুল করে,—মানুষের প্রার্থনায় চেয়ে।
পুণ্যাত্মা! নালিশ রাখ, নীলাকাশ ফেলিয়ো না ছেয়ে
নাকী সুরে। এই কিহে ভক্ত তুমি? ঈশ্বর নির্ভর—
এরি নাম? এরি অহঙ্কার কর ধার্ম্মিক প্রবর?

মন্দির-কদর ছাড়ি’ এস বন্ধু! এস বাহিরিয়া,
স্বর্গের কামনা ভোলো! প্রব্যথিত মানবের হিয়া
তোমারে খুঁজিছে, ওগো! এস, এস মানুষের মাঝে,
নরলোকে আছে কাজ; স্বর্গে তুমি লাগিবে কি কাজে?
মমতার চক্ষে চাও, দুৰ্ব্বলেরে তোলো হাত ধরে,
স্বর্গ পাবে মর্ত্তে বসি’,—পুণ্যফলে, দেবতার বরে।

ডান্‌বার।