প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অক্ষয়কুমার বড়াল গ্রন্থাবলী.djvu/৫৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


        হৃদয়ের প্রতি স্তরে    ভ্রমিয়া কৌতুক-ভরে,
          আশা সাধ মায়া তৃষা দু'দন্ডে পড়িয়া--
        সারাটা জীবন মম,    পঠিত গ্রন্থ সম,
          ফেলে' দিলে তৃপ্ত হ'য়ে, তাচ্ছল্য করিয়া।
        নীলাকাশে শশী রবি--অতি পুরাতন ছবি,
          বিস্ময়ে না হেরে আর মানব-নয়ন;
        অন্ধকারে খনি-তলে  ক্ষুদ্র মণি-কণা জ্বলে,
          ক্ষুদ্রত্ব ভুলিয়া তার দুষ্প্রাপ্য যতন!
        কল্পনায় মূর্ত্তি এঁকে',  অথবা চকিতে দেখে'
           আমরণ ভক্তি-ভরে পারি পূজিবারে! 
        পারি--কৃষকের মত   ছুটিবারে অবিরত
           ইন্দ্রধনু পিছে পিছে যেতে স্বর্গদ্বারে!
                      ৬
          শত ফেরে প্রাণ বাঁধি'  আমি একা বসে কাঁদি--
             মঙ্গলে সংশয়--এ যে সর্ব্ব-পাপ-মূল!
          নগ্ন প্রাণে, নগ্ন দেহে   শিশু আসে ভব-গেহে;
             কেন রবি মুগ্ধ-নেত্র, ধরা স্নেহাকুল!
          দিবা-শেষে অন্ধকার,   উপভোগে শ্রান্তি-ভার,
             পূজা শেষে বিসর্জ্জন জগৎ-নিয়ম;
          প্রণয় জগদতীত, যত দাও--নহে প্রীত,
           দাও, দাও, দাও সদা, নাহি ধারা ক্রম।
           যত জ্যোৎস্না ঝরে' পড়ে   তত চাঁদ শভা ধরে;
              বিলালে ছড়ালে প্রেম কোটি গুণ বাড়ে!
           নায়ক মশানে যায়--তবু প্রিয়া-গুণ গায়;
              মৃতদেহ পচে' যায়--নায়িকা না ছাড়ে!