প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অক্ষয়কুমার বড়াল গ্রন্থাবলী.djvu/৬২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অক্ষয়কুমার বড়াল-গ্রন্থাবলী
হাদয়ের তারাগুলি। একে একে অন্ধকারে
যেতেছে নিবিয়া ;
সারা নিশি আছে জেগে’—নয়নে পলক নাই,
জলে আখি গিয়াছে ভূবিয়া
তবু নয়নের সাধ মেটে নাই, হায়,
কেমন করিয়া তবে যায়।
বুক-ভাঙ্গা—প্ৰাণ-ভাঙ্গা এ সাধের এক কণা
পারিল না দেখাতে তাহায়,
শত অভিশাপ বিধাতায়।
চাহিয়া রয়েছে শুকতারা।
রজনীর হৃদয় উপর
পরাণটা আছে যেন আঁকা
তৃষা-মাখা আঁখির ভিতর।
নিস্তব্ধতা বসি’ এক পাশে
ব্যজন করিছে একা এক
এক কণা অঞ নাই চোখে,
মুখে নাই একটীও রেখা।
দূরে দূরে দিগঙ্গনাগণ,
দেব-পুতলী মতন,
নাসায় নাহিক শ্বাস, স্বলিত অঞ্চল-বাস,
স্তম্ভিত নয়ন ।
স্বপ্ন আর সহিতে না পারে ।
ছটা কর চাপি’ বুকে ছুটে যায়—নিজ যেথা
কাদিছে বসিয়া এক ধারে ।
ছ’ জনে জড়ায়ে হু’ জনারে।
শব-শূণ্ঠ কি ভাষায় কাদে হাহাকারে।