পাতা:অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান - মহেন্দ্রনাথ দত্ত.pdf/৭২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৫৬ অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান বিশেষ করিয়া বুঝিতে পারিতাম না। কিন্তু এখন সমস্ত বিষয় ভাবিয়া দেখিতেছি, যে, ‘বি’ কি সাধ্বী, কি পতিপ্রাণা স্ত্রীই ছিল! স্বামীও যেমন ব্রহ্মচারী হইল, স্ত্রীও তেমনি ব্রহ্মচারিণী হইল। স্বামীও যেমন নিঃসঙ্গ, দেহরক্ষার জন্য কিঞ্চিৎ আহার করিতে লাগিল, স্ত্রীও ঠিক সেইরূপ দেহরক্ষার জন্য কিঞ্চিৎ আহার করিয়া জীবনধারণ করিতে লাগিল। স্বামীও যেমন মেঝেতে শুইয়া নিঃসঙ্গ হইয়া জপ করিত, স্ত্রীও সেইরূপ মেঝেতে শুইয়া অনবরত জপ করিত। তখন এ সকল ভাবগুলির গুরুত্ব বুঝিতে পারি নাই, কিন্তু এখন বুঝিতে পারিতেছি যে সাধ্বী স্ত্রীর কিরূপ পতির প্রতি টান হয়। “শশিনা সহ যাতি কৌমুদী সহ মেযেন তড়িৎ প্রলীয়তে। প্রমদাঃ পবিত্মগা ইতি # # # ॥ ” অর্থাৎ জোৎস্না শশীর সাথে সাথে অস্ত যায়, সৌদামিনী মেঘের সঙ্গে সঙ্গেই লুকায়। প্রমদারা পতিরই অনুগামিনী হয়। ‘বি’র মনের কি তীব্র ভাব-কি হতাশ ও নৈরাশ্য ভাব আসিয়াছিল তাহা এখন বেশ বুঝিতে পারিতেছি। | সিদ্ধার্থ গৃহত্যাগ করিলে যশােধরার যেরূপ মনের ভাব হইয়াছিল এবং রাহুলের যেরূপ অবস্থা হইয়াছিল অথবা নিমাই গৃহত্যাগ করিলে বিষ্ণুপ্রিয়ার যেরূপ অবস্থা হইয়াছিল তাহা জানা থাকিলে এ বিষয়টী বিশেষ করিয়া উপলব্ধি করিতে পারা যায়। দাস রঘুনাথের বাড়ীর কথা কিছু বর্ণিত নাই, এইজন্য বিশেষ কিছু বলা যায় না—তবে মহা-অভিনিষ্ক্রমণ