পাতা:অধিকার-তত্ত্ব.pdf/৭৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১ই অধিকার-তত্ত্ব । যেমন অধিকার, অন্যেরও তদ্রুপ । সুতরাং ব্রাহ্মগণের বা অন্যের সাম্প্রদায়িক ভাব তথা যেন প্রকাশ না পশয় । বৰ্ত্তমান ব্রাহ্মেরা ক্রমেই এক সাম্প্রদায়িক মতে আবদ্ধ হইতেছেন । অতএব সাধারণ ত্রহ্মোপাসনা সভায় অন্যান্য সম্প্রদায়ের ব্রহ্মনাম শ্রবণের যেমন অধিকার অাছে, ব্রাহ্মদিগের তাহা অপেক্ষ অধিক অধিকার নাহি । এই কথা সকলের অবগত হওয়া উচিত । ব্রান্ধেরা যদি আপনাদের সাম্প্রদায়িক ভাবের সহ ব্রাহ্মোপাসনা করিবার মানস করেন তবে তাহার জন্য স্বতন্ত্র সমাজ বা ভজনালয় কৰুন । ভাদৃশ উপাসনা মন্দিরের নাম ব্রাহ্মসমাজ রাখা উচিত হইবেক না । যদি তাহার সে নাম রাখেন, তবে তাহার সহিত এভাবত কালের প্রচলিত ব্রাহ্মসমাজের কোন সম্বন্ধ নাই । র্তাহারা যদি ব্রাহ্ম-দলের নাম ব্রাহ্মসমাজ রাখেন, তাহারও সহিত প্রাচীন ব্রাহ্মসমাজের কোন ছন্দাংশ নাই । অগ্রে প্রাচীন ব্রাহ্মসমাজ স্থাপিত হইয়া পরে ব্রাহ্মদল হইয়াছে । অতএব ব্রাহ্মদলকে যদি আর ব্রাহ্মসমাজ না বলা যায়, এবং “ ব্রাহ্মসমাজ • পূর্বে যে উপাসনা স্থানকে বুঝাইত যদি কেবল তাহাই বুঝায়, তবে অনেক গোলযোগ নিবারিত হইবেক । তাহা হইলেই ব্রাহ্মসমাজ এক মাত্র ব্রাহ্মদলের হস্ত হইতে উদ্ধার পাইয়া সকল সম্প্রদায়ের অভেদ-সন্মিলন ক্ষেত্র হইয়া উঠিবেক — ৭ । কলিকাতায় রাজা রামমোহন রায়ের প্রতিষ্ঠিত যে প্রাচীন ব্রাহ্মসমাজ আছে, তাহাডে ব্রাহ্মদিগের সাম্প্রদায়িক মতের বড় আন্দোলন দেখা যায় না । যদিও ভাস্থার