প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অনাথবন্ধু.pdf/১৭৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


(४शभ श्र g-ड्रडीग्र न६था । ] ܫ ܦܩܚܦܫܩܝ .a ܡܫܝܚܝܩܝܦܒܦܡܦ Warah ܫܒܩ ܩܚ পরামর্শ করিতে লাগিলেন। পরামর্শে সাব্যস্ত হইল যে, বিজয়সিংহকে গৃহে শিক্ষাদান করাই কৰ্ত্তব্য । তদনুসারে সুপ্ৰসিদ্ধ লেখক বাবু অবিনাশচন্দ্ৰ দাস এম. এ. বি. এল. তঁাচার শিক্ষক নিযুক্ত হইয়াছিলেন । অবিনাশবাবুর শিক্ষা গুণে বিজয়সিংহের বেশ মানসিক বিকাশ হইয়াছিল। जांदावकङ्कारि । ১৯০০ খৃষ্টাব্দের ডিসেম্বর মাসে বিজয়সিংহ সাবালক হন। সেই সময় তিনি স্বহস্তে র্তাহার বিষয়ের তত্ত্বাবধানভার গ্ৰহণ করেন। সাবালক হইয়া তিনি তাহার ভূতপূৰ্ব্ব শিক্ষক বাৰু অবিনাশচন্দ্ৰ দাসকেই তাহার জমীদারীর ম্যানেজার নিযুক্ত করিয়াছিলেন। বিষয়কাৰ্য্যে বিজয়সিংহের স্বাভাবিক প্ৰতিভা প্ৰকাশ পাইয়াছিল। অল্পদিন পরেই তিনি শ্ৰীমতী য়াটুকিন্সিনের নিকট হইতে গোয়ামালটী জমীদারী কিনিয়া লইয়া বিলক্ষণ লাভবান হইয়াছিলেন। ১৯০৪ খৃষ্টাব্দের ডিসেম্বর মাসে বরোদ সহরে ভারতবর্মীয় জৈন-মহাসম্মিলনের অধিবেশন হইয়াছিল। জৈনগণ রায় বুধসিংহ দুধোরিয়া বাহাদুরকে তাহার সভাপতি ও ঠাঙ্গার ভ্রাতুষ্পপুল বিজয়সিংহকে সহকারী সভাপতি নিৰ্বাচিত করিয়া আপনাদের গুণগ্ৰাহিতার পরিচয় প্ৰদান করিয়াছিলেন । বঙ্গীয় জৈনসম্প্রদায়ের দুই জন কৰ্ম্মকুশল প্ৰতিনিধিকে সভাপরিচালনের কর্তৃত্ব প্ৰদানে যে কেবল তঁাহার। গুণগ্ৰাহিতার পরিচয় দিয়াছিলেন, তাহা নহে, তাহারা এতদ্বারা বাঙ্গালা দেশকে ও সম্মানিত করিয়াছিলেন । এই বিষয় লইয়া তদানীন্তন প্ৰধান প্ৰধান সংবাদপত্রেও বিলক্ষণ সন্তোষ প্ৰকাশিত হইয়াছিল। শ্ৰীযুক্ত বিজয়সিংহ উচ্চশিক্ষা লাভ করিয়াছিলেন বলিয়া জনহিতকর কাৰ্য্যে আত্মনিয়োগ করিতে র্তাহার ইচ্ছা স্বতঃই বলবতী হয়। তদনুসারে ১৯০৩ পুষ্টাব্দে তিনি সরকার কর্তৃক আজিমগঞ্জ মিউনিসিপালিটার কমিশনার মনোনীত হন। কমিশনারের পদ পাইয়া তিনি মিউনিসিপালিটীরা কাৰ্য্যপরিচালনে ঐকান্তিকভাবে আত্মনিয়োগ করেন। সাধারণ জনহিতকারকর্ম্যে র্তাহার নিষ্ঠা দেপিয়া সকলেই তঁাহার গুণেমুগ্ধ হইয়াছিলেন এবং যখন ১৯০৬ খৃষ্টাব্দে উক্ত মিউনিসিপালিটীর নির্বাচন উপস্থিত হয়, তখন তিনি উক্ত মিউনিসিপালিটীর চেয়ারম্যান হইবার ইচ্ছা প্ৰকাশ করেন। সাধারণ করদাতৃগণের বিজয়সিংহের উপর এরূপ প্রগাঢ় বিশ্বাস ছিল যে, প্ৰতিদ্বন্দিতায় সপ্তবিংশতিবর্ষীয় যুবক বিজয়সিংহই জয়লাভ করিয়াছিলেন। ইহা তঁহার পক্ষে অল্প গৌরবের কথা হয় নাই। উত্তরকালে তঁাহার কাৰ্য্যাবলীর দ্বারা স্পষ্টই প্ৰতীয়মান হইয়াছিল যে, সাধারণের সে বিশ্বাস সৎপাত্রেই ন্যস্ত হইয়াছিল। তেঁাহার কার্য্যদর্শনে রাজপুরুষগণ ও বিশেষ সন্তোষলাভ করিয়াছিলেন । তাহার কাৰ্য্যপরিচালনের নৈপণ্যদর্শনে সরকার বাহাদুর ১৯০৭ খৃষ্টাব্দের ৫ই জানুয়ারী তারিখে ঠাচাকে লালবাগ ইণ্ডিপেণ্ডেণ্ট বেঞ্চের অবৈতনিক রাজা বিজয়সিংহ দুধোরিয়া । SՀԳ adiks. ---- ম্যাজিষ্ট্রেট নির্বাচিত করেন। তিনি এই কাৰ্য্য এরূপ দক্ষতার সহিত পরিচালিত করিয়াছিলেন যে, সরকার শীঘ্ৰহ তাহাকে দ্বিতীয় শ্রেণীর ম্যাজিষ্ট্রেটের ক্ষমতা প্ৰদান করিয়াছিলেন। তিনি একাকী বিচার করিবার ক্ষমতাও প্ৰাপ্ত হইয়াছিলেন। ঐ বৎসর নার্সিং য়্যাসোসিয়েসনের সাহায্যকল্পে যে লেভী মিণ্টোর ফোঁট হয়, বিজয়সিংহ তাহার জেনারাল কমিটীর এক জন সদস্য হইয়াছিলেন এবং যাহাতে ঐ কাৰ্য্য সুশৃঙ্খলার সহিত নিৰ্বাহিত হয়, তাহার জন্য ঐকান্তিক ভাবে যত্ন ও চেষ্টা করিয়াছিলেন। शाखा-ठे°iव्लिाङ । শ্ৰীযুক্ত বিজয়সিংহের কাৰ্য্যদক্ষতা, জনহিতৈষণা, ঐকান্তিক ভাবে সাধারণের কাৰ্য্যে আত্মনিয়োগ, দান, চরিত্ৰবল ও বংশমর্য্যাদা দেখিয়া সরকার তাহার উপর বিশেষ প্রীতি হইয়াছিলেন। সেই জন্য ১৯০৮ খৃষ্টাব্দের ২৬শে জুন তারিখে স্বৰ্গীয় সমাঢ় সপ্তম এডোয়ার্ডের জন্মোৎসব উপলক্ষে তদানীন্তন রাজপ্রতিনিধি লর্ড মিণ্টো বাহাদুর শ্ৰীযুক্ত বিজয়সিংহকে রাজা-উপাধি প্ৰদান করিয়াছিলেন । বঙ্গীয় ওসোয়ালসম্প্রদায়ভুক্ত জৈনদিগের মধ্যে ইনি ভিন্ন আর কেহই BBmSuuB KK DDD DDSSS HLLL SKzBBS LD নবেম্বর তারিখে বেলভেডিয়ারের দরবারে তদানীন্তন বঙ্গের ছোটলাট স্তর য়্যাণ্ড, ফ্রেজার বাহাদুর রাজা বিজয়সিংহকে সনন্দ প্ৰদান করেন। এই উপলক্ষে তিনি যে বক্ততা করিয়াছিলেন, তাহাতে রাজা বিজয়সিংহের গুণগ্রামের BBB TKLDDD DS S DBD D DBDBYD SDBBD মুক্তহস্তে দান করিয়া থাকেন, স্তর য়্যাণ্ড, ফ্রেজার তাঙ্গা স্পষ্টাক্ষরে স্বীকার করিয়াছিলেন । রাজা শ্ৰীযুক্ত বিজয়সিংহের রাজসন্মানলাভে হিন্দ, মুসলমান, জৈন, সকল সম্প্রদায়ের বঙ্গবাসীই বিশেষ আনন্দিত হইয়াছিলেন । এই উপলক্ষে সর্বশ্রেণীর লোকই ঠাঠাকে সাদরে ও সাড়ম্বরে অভিনন্দিত করিয়াছিলেন । পুননির্বাচন । ১৯০৯ খৃষ্টাব্দে আজিমগঞ্জ মিউনিসিপালিটীর কমিশনার নির্বাচনের পরই রাজা শ্ৰীযুক্ত বিজয়সিংহ পুনরায় মিউনিসিপালিটীর চেয়ারম্যান নির্বাচিত হইয়াছিলেন। ঐ বৎসরই ১৮ই আগষ্ট তারিখে বাঙ্গালার তদানীন্তন ছোটলাট স্যরা এডোয়ার্ড নৰ্ম্মাণ বেকার বাহাদুর রাজা বিজয়সিংহের আজিমগঞ্জস্থিত প্ৰাসাদে গমন করেন । ঐ দিনই ছোটলাট বাহাদুর জিয়াগঞ্জস্থিত স্কুল খুলিয়াছিলেন। রাজা বিজয়সিংহ মহাশয় বিশ হাজার টাকা বায় করিয়া এই স্কুল গৃহ নিৰ্ম্মাণ করিয়া দিয়াছিলেন । ১৯০৯ খৃষ্টাব্দে রাজা বিজয়সিংহ তাহার ময়মনসিংহস্থ কারবার পরিদর্শন করিতে গমন করেন । এই স্থানে তিনপুরুষ ধরিয়া ঋণদানের কারবার চলিতেছিল এবং এই .la adhis ܝܦܦܐܒܝ-ܡܝ خصصدر