প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অনাথবন্ধু.pdf/৩৫৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


SC 3 स्नांथविकू। [ প্ৰথম বর্ষ, কাৰ্ত্তিক, ১৩২৩৷৷ NAAM এক জন ইংরাজ যুবক সাধারণতঃ প্রতিদিন তিন বারে এইরূপে খাইতে পারে - 外传夺枪 ь Stop" | भां९ल 8 Nea • • • ... • • • R , আলু . . . . . . . 8 . . . " ' " 8 figy རིl পনির ... " ... 's ৮ ছটাক পাউরুটিতে ৩৪ দশমিক চৌশটি ছটাক৷ LsLDB BBDS0 uDDB BBB SDDDS SDBD DDBDD DDBSDS BDBD BBBSDD SBBBD uuT DD DuDD এবং ৪ ছটাক 'আলুতে “০৮ দশমিক শূন্য আট ছটাক প্রোটীড থাকিতে পারে ; ৪ ছটাক দুগ্ধেও প্রোটডের মাত্ৰা ‘०७ अधिक ८बाल छांक ; २ छाक डिश '२७ अभिक ছাবিবশ ছটাক এবং ১ ছটাক পনিরে • ৩১ দশমিক একত্ৰিশ ছটাক । অতএব দেখ গেল, সৰ্ব্বশুদ্ধ এক জন ইংরাজ দৈনিক ২-১৯ দুই দশমিক উনিশ ছটাক বা মোটামুটি হিসাবে প্ৰায় ১১ তোলা প্রোটীড গ্ৰহণ করিতেছে। আর মধ্যবিত্ত বাঙ্গালী যুবকের নিত্যভোজ্য কি ? তাহারা সাধারণতঃ দৈনিক দুই বারে ৮ ছটাক চাউল, ১ DB DDDDBSDBD0 uBDBB BBB SBDDDS DBBDB DDD তাহারও কম মৎস্ত খাইয়া থাকে। দুগ্ধ, ঘুত অনেকের डांशाश् कूर्ण न। ৮ ছটাক চাউলে “৪০ দশমিক চল্লিশ ছটাক প্রোটড থাকে ; ১ ছটাক ডাইলে প্রোটীডাংশ • ২৩ দশমিক তেইশ ছটাক; তরকারিতে “০৮ দশমিক শূন্য আট ছটাকের অধিক প্রোটীড নাই এবং এক ছটাক মৎস্তে "১৮ দশমিক আঠার ছটাক প্রোটীড থাকিতে পারে। কাষে কাযেই বাঙ্গালীযুবক দৈনিক মোট ৮৯ দশমিক উননব্বই ছটাক বা সোজাসুজি হিসাবে প্ৰায় ৪৫ তোলা অর্থাৎ আবশ্যক পরিমাণে অৰ্দ্ধাংশেরও কম প্রোটীড গ্ৰহণ করে। অথচ তাহাকে DYDK BBDD BBBB DSDBDDS S iD BDDH होनवल श्या श्रद्ध । বিশেষজ্ঞগণ বলেন,-আমাদের খাদ্য সংস্কার করা নিতান্ত আবশ্যক হইয়াছে। যেরূপ কাল পড়িয়াছে, তাহাতে খাদ্য ज९झांब ना कब्रिहल-७थांडाश्कि थicछ cअौिह७द्र डांश ना बाफ्लश्टिल-बाक्रायौ नि नि झील ७ अकार्श्वना श्हेब्रा পড়িবে। অধুনা আমরা বিলাসিতায় অঙ্গ ঢালিয়া দিয়াছি। “অন্ন মূলং বলং পুংসং বালমূলং হি জীবনং”-এই ঋষিবাক্য ভুলিয়াছি। একে-আমাদের আয় অতি সামান্য। তাহার উপর পরিশ্রম করিয়া যাহা দুই পয়সা উপাৰ্জন করি, তাহা বিলাসিতার কল্যাণেই-বাবুগিরির সাজসজ্জা ও গৃহলক্ষ্মীcनद्ध वृद्धि, 6नभिश, श्रृंकरैडल ब्रिन कबिएडई बाबू कति। saamas-s semar ܫܚܣ■ বসি । সুতরাং পেটের দিকে আর তাকাইবার অবসর নাই। পরিশ্রম ষোল আনা, তাহার উপর অৰ্দ্ধাহার, অনাহার ও কদাহার সমস্তই আছে। আমরা বিলাসিতায় যে অর্থ বুথাব্যয় করিতেছি, সেই অর্থ সঞ্চয় করিয়া তন্দ্বারা পুষ্টিকর খাদ্য সংগ্ৰহ করিয়া আহার করিলে এখনও বল, আরোগ্য ও দীর্ঘজীবন লাভ করিতে পারি। যে ম্যালেরিয়া আজ বাঙ্গালা জুড়িয়া বসিয়াছে, যাহাকে তাড়াইবার জন্য আমরা মশাকের জাতি-লিঙ্গ নিৰ্ণয় করিয়া মশক বংশ ধবংস করিতে উদ্যত হইয়াছি, খাদ্য-সংস্কার করিতে পারিলেখাদ্যের সুবিধানদ্বারা বিধিদাত্ত ব্যাধি প্ৰতিষেধক শক্তিকে জাগ্রত রাখিতে পারিলে সেও এত সহজে আমাদের আক্ৰমণ করিতে সমর্থ হয় না । এক জন পরিশ্রমী বাঙ্গালী যুবকের দৈনিক দুই বারে এইরূপ আহারের পরিমাণ হওয়া উচিত। :-- 원 পরিমাণ ठश्ड cथतिौउांश् । bांठल ’ v छ9ॉक ’ ‘8० छांक । ডাউল " " " ་ . . . '89 و ماه • . . . . 8 . . . :Fif} \ ag 8 . • • • " R , • " " by . . . . *\0° a २४ छांक ১৭৯৮ ছটাক বা মোটামুটি হিসাবে প্ৰায় Şe (Nöă মাংস জুটলে মৎস্তের পরিমাণ কমাইলেও ক্ষতি নাই। মাংসে মৎস্তের ন্যায়ই প্রোটীড আছে। প্রাচীন ভারতের অধিবাসীরা যথেষ্ট পরিমাণে মাংস ভক্ষণ করিতেন। তখন র্তাহাদের দৈহিক বলও বিলক্ষণ ছিল। আরণ্য কুকুট, আরণ্য শূকর, গোসাপ, খরগোশ, কচ্ছপ, এমন কি উষ্ট্র, গণ্ডার। পৰ্যন্ত পৰ্য্যন্তও এক দিন হিন্দুর অভক্ষ্য ছিল না । যাহারা নিরামিষভোজী, তাহারা ডাইলের মাত্রা কিছু বৃদ্ধি করিবেন। ঐ সকল ব্যক্তি রাত্ৰিতে অল্পের পরিবর্তে BDD DBDBDD BDBBB BDBDBD DBB DDD SS DDD D DD uDBD SSD BD S S0YTD BBDLSS DDDD DB DDDBY অভাব অনেকটা পূর্ণ হইতে পারে। । তবে ইহা সৰ্ব্বদা মনে রাখা উচিত যে, প্রোটীড উপাদান। এমত মিশ্রিতভাবে আহার করিতে হইবে, যাহাতে উহা সহজেই পরিপাক প্রাপ্ত হয়। প্রোটীড খাইতে হইবে বলিয়া পৰ্য্যাপ্ত পরিমাণে ডাইল কিংবা মৎস্য খাইলে অথবা শর্করা খাইতে হইবে বলিয়া আকণ্ঠ ভাত, আলু বা মিষ্ট ভক্ষণ করিলে চলিবে না। কোন একটি নির্দিষ্ট থান্ত যথেষ্ট পরিমাণে আহার করা BBBB DD KDBDDS DDD DBDD DB DBBuBBK ঘটে না । - .