প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অনাথবন্ধু.pdf/৪৯৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


98. sustairs অনুকরণে দেবমন্দির নিৰ্ম্মাণ করেন । সুপ্ৰসিদ্ধ তীৰ্থ । পুরাণমল্পের মৃত্যুর পর তাহার দুই পুত্র তঁহার সম্পত্তি বিভক্ত করিয়া লইয়াছিলেন । এই সম্পত্তি-বিভাগসম্বন্ধে একটি অদ্ভুত কিম্বদন্তী আছে। প্ৰকাশ, দিল্পী হইতে জনৈক চারণ পুরাণমল্পের নিকট আসিয়া তাহার প্রশংসা করিয়া কয়েকটি শ্লোক পাঠ করেন । শ্লোক গুলি বিস্ময়জনক ও বিশেষ পাণ্ডিত্যপূৰ্ণ । পুরাণমল্ল তাহাকে পারিতোষিক দিতে চাহিলেন । চারণ উত্তর করিলেন যে, তাহার নিকট যে স্পর্শমণি বা পরশপাথর আছে, তিনি Buuu LDDuDS DBDBD DLDLD BB SBBD DBB BD না । কয়েকদিন পরে রাজা ঠাহার ছুরিকার দ্বারা অন্যমনস্কভাবে এক স্থানে মাটি খুড়িতেছিলেন ; এমন সময় দেখিলেন যে, তাঙ্গার ছুরিকাখনি সুবৰ্ণময়ী হইয়া গিয়াছে। রাজা বুঝিলেন যে, ঐ স্থানে নিশ্চয়ই পরশপাথর আছে। তিনি উচ্চা খুড়িয়া বাতির করিলেন এবং উহা সেই চারণকে প্ৰদান করিলেন । চারণ উচ্চ দিল্লীতে লইয়া গেলেন । যাইয়া তিনি তঁাতার সৌভাগোর কথা সকলকে জ্ঞাপন করিলেন । সেই কথা দিল্লীশ্বরের কর্ণে উঠিল। তিনি চারণদেবকে ডাকিয়া ঐ স্পর্শমণি দেখিতে চাহিলেন । চারণ বলিলেন, জাঙ্গাপনা, একটি সত্ত্বে আমি আপনাকে সেই স্পর্শমণি দেখাইতে পারি। যমুনা বক্ষে আপনি একখানি নৌকায় থাকিবেন, আমি এক খানি নৌকায় থাকিব । বাদশাহ, তাহাতেই সন্মত চাইলেন । যমুনা বক্ষে উভয়ে দুইখানি স্বতন্ত্র নৌকায় আরোহণ করিয়া কিয়দ্র মাইলে চারণদেব বাদশাহকে বলিলেন, হুজুর, আপনার তরবারিখানি বাড়াইয়া দিন । বাদশাহ তাঙ্গাই করিলেন । চারণদেব পরশপাথরখানি তরবারিতে স্পষ্ট করিয়াই উহা নদীগর্ভে নিক্ষিপ্ত করিলেন । তরবারিখানি তৎক্ষণাৎ সুবৰ্ণে পরিণত হইল । বাদশাহ বুঝিলেন, স্পর্শমণির কথা সম্পূর্ণ नडT । চারণদেবকে জিজ্ঞাসায় জানিতে পারিলেন যে, পুরাণমল্লাই তাহাকে ঐ পরশপাথর দিয়াছেন । তিনি পুরাণমল্লকে অবিলম্বে দিল্লীতে ডাকিয়া পাঠাইলেন । ইতিমধ্যে পুরাণমল্লের মৃত্যু হইয়াছিল। তাঙ্গার দুই পুত্র হরি সিং এবং বিশ্বম্ভর সিং তখন তাঙ্গার রাজ্যশাসন করিতেছিলেন । হরি সিং দিল্লীতে নীতি হইলেন । বাদশাচ তাহাকে আর একখানি পরশপাথর দিতে বলিলেন । হরি সিং উহা দিতে পারিলেন না । সম্রাট তাহাকে কারাগারে পাঠাইলেন। চরি সিং যখন দিল্লীতে অবরূদ্ধ ছিলেন, তখন বিশ্বম্ভর সিংহ সমস্ত পৈতৃক-সম্পত্তির মালেক হইয়া রাজ্যশাসন করিয়াছিলেন । কিছুদিন পরে হরি সিং ধনুৰ্ব্বিদ্যায় বাদশাহকে পরিতুষ্ট করিয়া মুক্তিলাভ করেন। বাদশাহ হরি সিংকে বিস্ত হাজারী saskar as ano এ অঞ্চলে ইহা অনাথবন্ধু। F5ዳffiቛ · কি নূন্তু সে মণি অার পাইবার উপায় ছিল না । তিনি । [ প্ৰথম বর্ষ, পৌষ, ১৩২৩৷৷ a*N*disama ---- পরগণা প্ৰদান করেন । হরি সিং আপনার পৈতৃক-রাজ্যে আসিয়া দেখিলেন যে, তাহার ভ্রাতা বিশ্বম্ভর সিংহ পৈতৃকসিংহাসনে প্রতিষ্ঠিত হইয়াছেন । ১০৬৬ অব্দে এই বংশের আদিপুরুষ বীরবিক্ৰম সিংহ যখন শাহ সুলতান সাহেবুদ্দীন ঘোরীর সহিত বঙ্গাভিমুখে অভিযান করেন, সেই সময় হইতেই রাজা পুরাণমল্পের মৃত্যুকাল পৰ্য্যন্ত (১) চকাই অঞ্চল সমেত গিধোড়, (২) দেওঘর সমেত রোহিণী, (গ) বিথোড়, (৪) চানন, (৫) ভূখা ও (৬) বিস্তহাজারী পরগণ এই বংশের রাজ্যান্তিৰ্গত ছিল । কিন্তু হরি সিং আপনার স্বত্ব বিস্তার করিয়া বিপুল রাজ্যের অধিকারী হইলেন । রাজবংশের নিয়ম অনুসারে জ্যেষ্ঠপুলিই রাজাধিকারী হইয়া থাকেন । সেই নিয়ম অনুসারেই এই রাজবংশ অনুশাসিত তহঁয়া আসিতেছিল । সেই জন্য রাজা বিশ্বম্ভর সিংহ ও জোষ্ঠের অধিকার পরিত্যাগ: করিতে সন্মত হইলেন । যাহা হউক, শেষে উভয়ের মধ্যে একটা আপোষ নিস্পত্তি হইল। এই নিস্পত্তির বণানুযায়িক “গা ধোড়ি ও অন্যান্য পরগণা রাজা AhDDBDB DBDBBS BBD BBDBDBD DBBDS S DB DDD গিধোড়ি- রাজবংশের পূৰ্ব্বপুরুষ, বিশ্বম্ভর সিংহ খয়রার কুমারবংশের পূৰ্ব্বপুরুষ। চরি সিংহের দিল্লীতে অবস্থানসম্বন্ধে আর একটা বিশ্বাসযোগ্য কাহিনী আছে । তাই। ঠাইতে জানা যায় যে, পুরাণমল্লেৱ সদাচরণের জামানস্বরূপ হরি সিংকে দিল্লীতে রাখা হয় । তাছাতে পরশপাথরের কোন উল্লেখ নাই । কিন্তু অগ্যাগ্য বিষয়ে প্রথমোক্ত গল্পের সঠিত তাহার বিলক্ষণ ঐক্য আছে । গিধোড়ি-রাজবংশের চতুদশ রাজা দ’লন সিংহ মুসলমান সরকারের নিকট হইতে বিশেষ সম্মানলাভ করিয়াছিলেন । সমাঢ় শাজাহান একখানি সনন্দ দ্বারা ভঁাতার রাজা উপাধি পাকা করিয়া দিয়াছিলেন । আজি ও ঐ ফান্মাণ বা সনন্দখানি বাৰ্ত্তমান আছে। উহাতে তারিখ লিখিত আছে.—২১ BBSD AA BDD S DBBD S gD SDDD S DBY g DBBDS খানি লিখিত হইয়াছে । অতঃপর দিল্লীতে শাজাহানের পুলগণের মধ্যে যে বিবাদ আত্মপ্ৰকাশ করে, তাতাতে রাজা দালন সিং দারাসেকোর পক্ষ অবলম্বন করিয়াছিলেন । সেই জন্য ধন্যবাদ দিয়া দার। দলন সিংহকে যে পত্ৰ লিখিয়াছিলেন, তাঙ্গা গিধোড়ি রাজগতে আজি ও রক্ষি ৩ ত ইয়াছে এবং সা সুজা সাঙ্গাযা প্রার্থনা করিয়া দলন সিংহকে যে পত্র BBDBDBBBSBD DDLDDL DDkD BDBBDBBBB DDD রহিয়াছে । "রাজা দালন সিংহ যাহাতে এই উৎসবে যোগদান করিতে পারেন, সেই জন্য তঁাহাকে তাঙ্গার নিজের সওয়ার ও পদাতিক লইয়া এখন উক্ত গৌরবমণ্ডিত দরবারে উপস্থিত হওয়া কৰ্ত্তবা হইয়াছে।”— এই কথাই উক্ত ফলম্মাণে লিখিত আছে। ফান্মাণখানি গিধোড়-রাজংসারের দপ্তরখানায় এখনও রহিয়াছে । আইন-ই-আকবর ws -rr espag