প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অনাথবন্ধু.pdf/৯৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


૧૨ AX MSeSSqSSLS qSq S qSqSMS MSqS MSSSSqS qeSSLSSSqqqqqSSSLLST aba ax re-re re হইলে বীজ অঙ্কুরিত হয় না । মৃত্তিকার মধ্যে রসের ও উত্তাপের সংযোগে বীজের রাসায়নিক পরিবর্তন ঘটে ; সেই পরিবর্তনের ফলে বীজ অঙ্কুরিত হয়। ভগবান জমীতে জল দিবার যেমন ব্যবস্থা করিয়াছেন, উত্তাপ দিবারও সেইরূপ ব্যবস্থা করিয়াছেন। সুৰ্য্যের কিরণই সাধারণতঃ এই উত্তাপ প্ৰদান করে। ইহা ভিন্ন মৃত্তিকাকে উত্তপ্ত করিবার আরও কতকগুলি কারণ আছে। আমরা একে একে তাহার কথা আলোচনা করিব । এই উত্তাপসম্বন্ধে কতকগুলি কথা জানিয়া রাখা নিতান্ত আবশ্যক। একই পরিমাণ উত্তাপ প্ৰয়োগ করিলে সকল জিনিস সমানভাবে উত্তপ্ত হয় না। একই ওজনের একই ভাবে গঠিত লোহার, তামার ও সীসার তিনটি জিনিস। যদি রৌদ্রে ফেলিয়া রাখা যায়, তাহা হইলে দেখা যাইবে যে, ঐ তিনটি জিনিস সমান গরম হয় নাই। ইহাতে বুঝা যায় যে, উহারা সমানভাবে উত্তাপ গ্ৰহণ করে নাই অথবা সমানভাবে উত্তাপ টানিয়া লইলেও একই পরিমাণ উত্তাপে তাহারা সমানভাবে উত্তাপের লক্ষণ প্ৰকটিত করে নাই। এইখানে তাহদের পরস্পরের উত্তপ্ত হইবার শক্তির তারতম্য সুচিত হয়। দ্রব্যভেদে এই উত্তপ্ত হইবার শক্তিকে “উত্তাপশক্তি” বলা যাইতে পারে। দ্রব্যবিশেষের এই উত্তাপশক্তির তুলনা করিবার উপায় আছে। পণ্ডিতেরা এই উত্তাপশক্তি বুঝাইয়া দিবার জন্য প্ৰত্যেক fft “Ottofa TSVGsto” (specific Heat) fÍ করিয়া দিয়াছেন। একটা নিদিষ্ট পরিমাণের দ্রব্যকে এক ডিগ্রী উত্তপ্ত করিতে যে পরিমাণ উত্তাপের প্রয়োজন, আপেক্ষিক উত্তাপের অঙ্ক দেখিলে তাহা বুঝা যায়। দশমিক ভগ্নাংশে তুলনার ভাষায় সেই অঙ্কপাত করা হয়। মৃত্তিকায় BB GDD SDBD DBDS DDDD BDD SDBBBD DDBBD করিতে সৰ্ব্বাপেক্ষা অধিক উত্তাপের প্রয়োজন হয় । এই জলের উত্তাপশক্তিকেই “আপেক্ষিক উত্তাপ” মাপিবার মানদণ্ড ধরা হইয়া থাকে। একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ জলকে এক ডিগ্রী অধিক উত্তপ্ত করিতে যে পরিমাণ উত্তাপের প্রয়োজন, তাহাকেই উত্তাপ মাপিবার গাজকাঠস্বরূপ “এক” ধরা হয় । তাহার পর পরীক্ষা করিয়া দেখা গোল যে, তাহার অৰ্দ্ধেক পরিমাণ উত্তাপ প্ৰয়োগ করিলে হিউমাস (Humns) নামক মৃত্তিকাস্থিত জিনিসের উত্তাপ এক ডিগ্রীবৃদ্ধি পায়; পণ্ডিতেরা আমনই স্থির করিলেন,- উহার অপেক্ষিক উত্তাপ ‘আধ’ (':'); জলকে এক ডিগ্ৰী অধিক উত্তপ্ত করিতে যে পরিমাণ তাপের প্রয়োজন, কাদাকে (clay) এক ডিগ্ৰী অধিক উত্তপ্ত করিতে তাহার সিকিপরিমাণ উত্তাপের প্রয়োজন হয়, সেই জন্য কাদার আপেক্ষিক উত্তাপ সিকি (25) । আবার পরীক্ষা করিতে করিতে দেখা গেল যে, জলকে এক ডিগ্রী উত্তপ্ত করিতে বে পরিমাণ উত্তাপের প্রয়োজন, বালীকে এক ডিগ্ৰী خطس. ܣܩܝܫ ܣܝܒܽܡܩܝܡܝ-ܝܣܚܐ অনাথবন্ধু। [ '@थं वर्षं, अव°, »७२० ।। athlesia-1a re-re. -- উত্তপ্ত করিতে হইলে তাহার পাঁচ ভাগের এক ভাগ উত্তাপের প্রয়োজন। সেই জন্য সাব্যস্ত হইল যে, বালুকার আপেক্ষিক উত্তাপ এক পঞ্চমাংশ (0,2) । সোজা কথায় বলিতে গেলে বলিতে হয় যে, যে পরিমাণ উত্তাপে এক সের জলকে এক ডিগ্ৰী নরম করা যায়, সেই পরিমাণ উত্তাপে দুই সের হিউমাসের, চারি সের কাদার বা পাঁচ সেরা বালীর এক ডিগ্ৰী উত্তাপ বৃদ্ধি করা যায়। এই জন্যই বালুকাই সৰ্ব্বাপেক্ষা অধিক উত্তপ্ত হইয়া থাকে। অতএব বুঝা গেল যে, জমীর উত্তাপটা মৃত্তিকার উপাদানীভূত পদার্থের উপর নির্ভর করে। সকল জমীর উপাদান যখন সমান নহে, তখন একই প্ৰকার উত্তাপপ্ৰাপ্তিতে সকল জমী সমানভাবে উত্তপ্ত হয় না। যে জমীতে বালুকার ভাগ অধিক, সে জমী যত শীঘ্ৰ গরম হইয়া উঠে, যে জমীতে হিউমাসের ভাগ যত অধিক, সে জমী তত শীঘ্ৰ তত উত্তপ্ত হয় না। আবার যে মৃত্তিকা অত্যন্ত সিক্ত, সে মৃত্তিক সহজে গরম হয় না। ফসল জন্মিবার পক্ষে জমীতে DBB BDD DDBDBDBD DBBDDY SS SDBD BB DDBBBBD একটা পরিমাণ আছে ; সেই উত্তাপ অতিক্রান্ত হইলে জমীতে ফসল ভাল হয় না। যে মাটিতে বালুকার ভাগ অধিক, সে মাটি শীঘ্ৰ উত্তপ্ত হয়, তাহার ফসল অকালে পাকিয়া যায় এবং ফলন কম হয় ; বেলোজমীতে অনেক ফসল ভাল হয় না। আমরা অনেক সময় দেখিতে পাই যে, কয়েকখানি জমীতে এক সঙ্গে চাষ দেওয়া হইল, এক সঙ্গে DBD DBBD DBD DBBS SgBBD DBBSB DDDD B DDD হইল,-কিন্তু কোন ক্ষেতের ধান বিশেষ বৃদ্ধি পাইল না, আগে পাকিয়া গেল, ফলন কম হইল। ইহাতে বুঝিতে হইবে যে, ঐ জনীতে আবশ্যকের অধিক পরিমাণে বালী আছে, উহাতে পাত-লতার সার বা হিউমাস যোগ করিয়া দেওয়া আবশ্যক । গোবরের সার দিলেও সুবিধা হয় । সারের কথা বিশেষভাবে পরে বলা যাইবে । জমীর বর্ণের উপরও মৃত্তিকার উত্তাপ কতক পরিমাণে নির্ভর করে । কৃষ্ণবৰ্ণ মার্টি অধিক উত্তাপ আকর্ষণ করিয়া লয়, শুক্লাবণের মৃত্তিক তত উত্তাপ গ্ৰহণ করিতে পারে না । পরীক্ষা করিয়া দেখিলে এই কথার সত্যতা সহজে উপলব্ধ হইবে। দুইটি মৃন্ময়পাত্রে একই প্রকারের মাটিতে পূৰ্ণ করিয়া রাখ, একটি পাত্রের মুখে ধূমের কুল ছড়াইয়া দাও, আর একটি পাত্রের মুখে চুণের গুড়া ছড়াইয়া দাও”। পাত্ৰ দুইটি নাদা প্ৰভৃতির ন্যায় বিস্তৃতমুখ হইলেই DDBS S SDDDDD SS DDS BBDD DDiDiB BDDBDBB BBB রাখি, তাহা হইলে কিছুক্ষণ পরে তাপমানযন্ত্রের সাহায্যে দেখিতে পাইবে যে, যাহার মুখে বুলি বা কালি দেওয়াতাহার ভিতরের মাটি অধিক উত্তপ্ত হইয়াছে আর যাহার মুখে চূণ দেওয়া-তাহার মাটির উত্তাপ অপেক্ষাকৃত অল্প। ... দুই পাত্রে একই প্রকারের মাটি রাখিবার উদ্দেশ্য এই যে, মাটির