পাতা:অনাথ আশ্রম - ক্ষীরোদপ্রসাদ বিদ্যাবিনোদ.pdf/১৬৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


, . . , . " গুরু । তোমায় এ উপকার কম্বতে কে । বলেছে ? বৃদ্ধ বয়সে আমার কাছে প্রহার খাবে | এইটেই কি তোমার আকিঞ্চন ? : { বীণা ৷ বলে দিয়েছি। গুরুদেব ! আরও | কিছু বলতে পারি তার উপায় করে দাও । সুদ্ধ। গানে আর আমি সস্তুষ্ট নই। আমাকে দিদির { সঙ্গিনী কর । , গুরু । আচ্ছা তা দেখা যাবে এখন - এখন যা দেখি, ঘর থেকে একটা হৱীতকী নিয়ে ! 1 বীণা ৷ চোক টিপলে হচ্চে না । আমায় । যদি দিদির সঙ্গে না যেতে দাও, তা সকলকে ব’লে দেব। " গুরু। এখন যা বললেম তা কর। ;-যা- যা-আমার গা কেমন কচ্চে-তবু দেখ দাঁড়িয়ে ব্লাইল । । বীণা। আমি যাব না। লক্ষ্মী। তারা কি যুদ্ধ বিদ্যা শিখছে ? গুরু। তুমিও যেমন পাগল, ওর কথা । শোন। ক্ষত্ৰিয়ের মেয়ে, সকল রকম বিদ্যার অন্ততঃ কিছু কিছুও জেনে রাখা আবশ্যক ; তাই কা’কে কি বলে, কোন অস্ত্র কি রকম ক’রে ব্যবহার করতে হয়, তাই একদিন আধাদিন, একটু আধটু শিখিয়ে দি । । শূর। উচিত তাঁ। আমি কে অপদাৰ্থ, তা না হ’লেও সব কাজ আমারই ত করা উচিত। SuDD SS SuS বীণা। ওমা ! গুরু হ’য়ে মিথ্যা কয় দেখ! | একদিন আঁধাদিন ? রোজ তারে শেখাও না ? শেখবার জন্য শেখাও, না যুদ্ধ করবার জন্য শেখাও ? আর ক্ষত্রিয়ের মেয়ে ব’লেই যদি অস্ত্ৰ বিদ্যা শেখাও, তবে আমিও ত ক্ষত্ৰিয়ের মেয়ে- | শূর। গুরুদেব ! আর বৃথা চেষ্টা। আপনি করতে নিয়ে যাওয়া হয়। সঙ্গে যান তোমার । দদিকে আবার মৃগয়া । আদরের সারণ। দিদির সাজ দেখনি ? এদিকে । ঢাল, এখানে তারোয়াল, এখানে ङ्- হাতে । বরশা-আর এ হাতে ধনুক । আর গায়ের চার- ; ধারে কত কি। ব’লে দাও না বাবা! আমাকেও অমনি ক’রে সাজিয়ে দিতে । গুরু। তুইও মৃগয়া কলুবি নাকি ? - বীণা। কেন, মৃগয়া না করলে কি আর | অস্ত্রবিদ্যা শিখতে নেই ? : 喻 গুরু। মৃগয়া করতে চাসতো শেখাই। তা না হ’লে সুধু সুধু শেখাতে আমার দায় পড়ে গেছে । r বীণা । তাই করব।-আচ্ছা বাবা । জন্তু { গুলো কি অপরাধ করেছে? তারা ফলমূল | পাতালত খেয়ে বেড়ায়, তাদের সুখের রাজত্বে এ উৎপাতের প্রয়োজন কি ? সুধু খাবার জন্য ? : -আমি পারব” না৷ -“আমার মৃগয়াকৌশল শিখবার প্রয়োজন নেই । আমায় যুদ্ধবিদ্যা । শেখাও ! আমি বাবার শত্রুসিংহার করি । গুরু । তোর বাবার শত্রু কে তা জানিস ? বীণা। কে আবার-ব্যবন। গুরু। যবন কি তা জানিস? বীণা। যবন আবার কি ? আমি তোমার ; কথা বুঝতে পারি না বাপু । গুরু। যবন-মানুষ। তার তোর বাপের মতন বাপ আছে ; তোর মায়ের মতন মা । আছে ; তোর মতন, তোর দিদির মতন মেয়ে । আছে ;-তার বুকে অস্ত্র নিক্ষেপ করতে পারবি?--তার সংসারে শোকানল প্ৰজ্বলিত । { করতে পারবি :-মুখ শুকিয়ে গেল কেন ? )