পাতা:অনাথ আশ্রম - ক্ষীরোদপ্রসাদ বিদ্যাবিনোদ.pdf/২৬৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


স্বামী। বলেন কি ? তা হ’লে আর কে । হ’লে tার কে { হাতে কাশীবাসের ফলটা সমর্পণ করে আসি ) আপনাকে এক পুকুর জল খাইয়ে দিইগে। 1 পূর্বেই আমরা কাল সঙ্কল্প করেছিলেম, একদিন । পৰ্ব্বত। ও মামা! সত্যি সত্যিই তাই ] মাত্র তোমার পিতৃগৃহে অবস্থান ক'রে এই | করবে নাকি? স্থানে আতিথ্য-গ্ৰহণ করব। তাতে বাবাজীর । সুকু । ভয় কি ঠাকুর ) ও না দেয়, আমি | বিশেষ আগ্রহ, তোমাদের হাতের পায়েসটা আপনাকে রোধে খাওয়াব। কেমন একবার পরীক্ষা করে। । পৰ্ব্বত। আর এক পুকুর জল খাওয়াতে ] পৰ্ব্বত। ই সুকুমারি, মামার যা কিছু | হয় না।—এক গণ্ডুষ জল মুখের কাছে নিয়ে না ; করা সব আমার জন্য। মামার খাওয়া দাওয়া । যেতে যেতে, ইন্দির ঠাকুর অমনি লপ ক'রে । কিছু নেই। মামার এখানে আগমন সুধু তোমায় তুলে নিয়ে যাবে। শত অশ্বমেধ সে কি আর কাউকে করতে দেবে মনে করেছ? { একটার ওপর আর একটা যজ্ঞ কালেই তার গা | ष्ट्रिविड़ कर-१iएछ उद्ध शंख्यालू नाम ! লোপাট হয়ে যায়।-নাও, বল কোথায় পায়েস । হয়। সেই ঘরটা কোথায় দেখাবে চল। তা ! হ’লে কাশী যাওয়ার দায় হ’তে নিস্কৃতি পাই । বাবা এইটুকু আসতেই মৰ্ত্ত্যের রাস্তার মৰ্ম্ম । বুঝেছি। রমে!! আমাকে পেট ভরে পায়েস । খাওয়াও। আশীৰ্ব্বাদ করি, সুমেরু হ’তেও উচ্চতর পুণ্য-শৈলে আরোহণ কর। ; : রমা। শৈলে ঠাকুর ? পৰ্ব্বত। { তাও কি বলে দিতে হবে ? সেখানে মেঘে । রমা। মনের কথা বুঝেছি ঠাকুর । অমিয়া । মেঘ থেকে ক’রে প’ক্ষে যাই, আর আপনি | মজা ক’রে পারসের হাঁড়ীটে দখল ক’রে নেন। } ও দিদি । ঠাকুরকে পায়েস দিলনি, ঠাকুরের মতলৰ ভাল নয়। : নারদ। আর বুবাজীকে নিয়ে রন্থ রবার প্রয়োজন নেই। চল বাবাজীকে হা আরোহণ ক’রে কি করব ? আম্রাণের জন্য-খাব কেবল আমি। " সুকু। আপনাদের সৃহবাস সুখে বঞ্চিত। হয়ে পিতা ত আমার মনঃক্ষুব্ধ হবেন না ? ? নারদ। তিনি শুনে পরমানন্দিত হয়েছেন। দেখ সুকুমারী তীর মুখে তোমার পিতৃ-ভক্তির কথা শুনলেম। শুনে যে কি পৰ্যন্ত আহ্বলাদিত । হয়েছি তা আর কি বলব! পিতৃপরায়ণা ! তুমিই | নারীকুলে ধন্ত। পিতৃদেবের সাধিক গাণপতাই বল, শৈবই বল, শাক্তই বল, আর বৈষ্ণবই বল -কি ব্ৰাহ্মই ৱল, এজগতে তোমার স্থান কেহ অধিকার করতে পারবে না। : পিতা স্বৰ্গ: পিতা ধৰ্ম্মঃ পিতাহ পরমস্তপঃ, } পিতরি প্রতিমাপরে গ্ৰীষ্মন্তে সৰ্ব্বদেবতাঃ। | এই যে কৈলাসগিরির মত তুষারপ্তাত্র দেহে, । বনের শিবমন্দির দণ্ডায়মান রয়েছে, এখানে সুধু একা মহেশ্বরের অধিষ্ঠান নয়, এই মন্দির ৷ দ্বারে সকল দেবতাই বাধা পড়ে আছে। : পৰ্ব্বত। আমরা বাকী ছিলেম, আমরাও । পড়লেম। এখন শালিতণ্ডুলের পায়স রূপ দৃঢ় । | রজ্জ্ব দিয়ে মামাকে একবার বেঁধে ফেলতে ত! রমা। ঠাকুর অলঙ্কার শাস্ত্রটা একেৰারে।