পাতা:অনাথ আশ্রম - ক্ষীরোদপ্রসাদ বিদ্যাবিনোদ.pdf/৩৪৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রঘু। কি। সরদার ! ফটক খুলে দেব, । হ’ত, এমন নয়। fি গোপন রাখা ত আর : বেরিয়ে বাবে ? ? SS S | কৰ্ত্তব্য নয়। প্ৰভাতেই সমস্ত রহস্য প্রকাশ । · Cጓጓé 1 ማቑቭ হয়ে পড়বে। তখন সুলতানকে এ খবরটা - কুহকিনী । । | আমার দেওয়া কৰ্ত্তব্য। কে ওখানে দাঁড়িয়ে ? র্থই বলেছ। রঘুজী-এর রঘু। কুহকিনী সরদার, কুহকিনী-এক । কুহকিনী তোমার রেসেলদারের মস্তকস্পর্শ ক’রে তার সমস্ত বুদ্ধি অপহরণ করেছে। অপর কুহকিনী তোমার মৰ্ম্মভেদ ক’রে তোমাকে যাদু { করলে-বিরুদ্ধ শক্তি আজ স্ববশে এসে দেশের কাজে নিযুক্ত হল-সরদার, তোমরা আল্লা বল; } আর আমি হর হর ব’লে, মনোরম দাসত্বে পা বেঁধে, ভরা গাঙে গা ভাসান দিয়ে, চোক বুজে কোন অনির্দিষ্ট দেশে চলে যাই । দ্বিতীয় অঙ্ক । প্রথম দৃশ্য । ] বিজাপুর-বেগমের কক্ষ। তাজবেগম । তাজ। মা দেখছি আমাকে অপ্রস্তুত করলেন। রাত্রের মধ্যে ফিরে আসব ব’লে আমেদনগরে চলে গেলেন, তৃতীয় প্রহর রাত্ৰিও ত অতীত হ’ল ! কিন্তু কই মায়ের ত এখনও দেখা নেই। মায়ের কথার খেলাপ হবে? হয়ত হোক না, তবু এক দিন মায়ের কথায় সুলতানকে তামাসা করবার জিনিষ পাব। সুলতানের কাছে তিনি কথা গোপন রাখতে বলে গেছেন। আমার বিনা চেষ্টাতেই কথা গোপন হয়ে গেছে। আজকে প্ৰভাত থেকে রাত্রির এতক্ষণ পৰ্য্য দেখা নেই। এসে জিজ্ঞাসা করলে কথা | গোপন রাখতে পারতুম না, আমাকে বলতেই

i (খতিজার প্রবেশ।) । খতিজা। অ! আমার পোড়া কপাল, তুমি । এখনও ঘুমোওনি রাণী ! তাজ। কেমন ক’রে ঘুমুৰ ? রাজা এখনও : আসেন নি। খতিজা। আসেন নি ? ) তাজ। এলে কি আর দেখতে পেতিস না! : খতিজা । আসবে না সেত ধরা কথাঅত আলগা দিয়ে রাখলে কখন কি পুরুষ মানুষ । दार्थ अनि : তাজ। রাজা খাস কামরায় আছেন, . ! তাকে একবার খবর দে দেখি ! ଦ୍ଵିତ୍ଵ । নিশ্চিন্ত আছ ? তাজ। আছি বই কি ! খতিজা। তাইত বলি, ঘুমুতে ঘুমুতে। শিউরে উঠছিলুম কেন—তুমি আমার মানুষ করা মেয়ের মেয়ে-আঁতে আঁতে টান-প্ৰাণ ঠিক থাকবে কেন ? ঘুমুচ্ছি। আর প্রাণটা যেন বেঁউরে বেঁউরে উঠছে—তাইত ভাবি এত দিন তুমি তাই বিশ্বাস ক’রে নয় তত দিন নয়, প্ৰাণটা মাঝখান থেকে বিগড়ে গেল কেন ? ভাবলুম এ বয়সে আবার | বিরহ হ’ল নাকি ? তা আমার না হয়ে যে | আমার তাজের হয়েছে তা কি করে জািনব ? : তাজ ! তোর মতন অমন আমার পানসে। | প্ৰাণ নয় যে, কথায় কথায় বিগড়ে যাবে। খতিজা । । क्ल७ তেম fi হচ্ছে । fof ভোৱ হ'তে চলল-মোরগ ডাকবার সময় হ’ল, হ’ত। বললে একটু তিরস্কারও বে খেতে না ' প্ৰাণনাথ তৰু এল না! :