পাতা:অনাথ আশ্রম - ক্ষীরোদপ্রসাদ বিদ্যাবিনোদ.pdf/৪৬৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বগুণ্ঠনে বদনকৃত করিলেন, আদি ৷ চুপ কািরয়া থাকতে হচ্ছিল। হায়, দেবভাষা {। “ঈশ্বর নারী হইয়া ভূতলে । সংস্কৃত। তখন যদি জানিতে, এই ভারতে 1-পোড়া কপাল সে ঈশ্বরের, । কবিতারস্যময়ী নারী জন্মগ্রহণ করিবে, হৃদয় ঈশ্বর মানিব না।” ; ভয়াইবে, ভুবন মাতাইবে, আর জানিয়া শুনিয়া কবিতা রসমাধুৰ্য্যং কবিৰ্বেত্তি ন তৎকবিঃ , যদি একটা অভিধান দিয়া যাইতে, তাহা হইলে ঔষধের গুণাগুণ- লইয়া তর্ক করিতে চাহি না, লিঙ্গ নির্ণয়ে আমাদের এত লজ্জায় পুড়িতে হইত কবি হও বুঝতে পরিবে। তবে একান্তই যদি } না। যদি জানিতে ডুমুরের ফুল হইবে, क्ल বুঝিতে অক্ষম হও, তবে এই মাত্র বলিয়া রাখি, , টুপিলেই জল বাহিfরবে, তাহা হইলে পাণিনিকে প্রতিবেশী প্রতিবেশিনী যাহার কাছে যাও, সেই । লইয়া আর টানাটানি করিতে হইত না। অথবা তোমাকে বুঝাইয়া দিবে। বিলাসী দেশীয় ! ত্রিকালজ্ঞ আৰ্য্য ঋষি অনেক বুঝিয়া, সমাধিবলে রাজার অত্যাচারে যে ফুল ফুটিতে ফুটিতে ভবিষ্যৎ প্রত্যক্ষবৎ দেখিয়া নারীকেও পুরুষের শুকাইয়া বাহঁত, তুলিবার লোক নাই বলিয়া ; মধ্যে গণ্য করিয়াছেন। যাহার হৃদয়কন্দরে সেই কাব্যকুসুম এখন ঘরে ঘরে ফুটিতেছে, । কোটী কোটী নির নারীর সোণার কাটি রূপার পথে পথে গড়াইতেছে, হাওয়ায় হাওয়ায় { কাটি নিহিত আছে, সে পুরুষ হইল না, আর छैछि८डएछ । | যে যাত্রাকালে শূন্য কলস দেখিয়া গমনে বিরত, কবিতা লেখে না কে ? কাব্য বুঝে না | এমন-দুৰ্ব্বল তুমি হইলে পুরুষ। তবেই স্থির কে ? নারী হইয়া যদি তুমি বুঝতে না পাের, { হইল, কাননিকা কবি। এমন কবির জীবনতাহা হইলে বুঝিব, তোমার প্রভু বাজার । চরিত লিখিয়া লেখনী সার্থক করিব । সকলে। সাধার भांभू র্যাং সরকার-শিরোমণি । পুরুষ হইয়া যদি বুঝিতে ; আমার সহিত যুক্ত করে বল :- [ অক্ষম হও, তাহা হইলে বুঝিব, তোমার গৃহিণী | যত্ন ক'রে ভাজিয়াছি-গৌরচন্দ্ৰিকা, । তোমার তাম্বুলকাঙ্কবাহিনী, রন্ধনশালার পঞ্চাল" | আদরে সাধিয়া দিছি অবতরণিকা। : নন্দিনী । বুঝিতে না পারিলেও বুঝিয়াছি | এই পাপভরা মৰ্ত্তে করিয়া ভূমিকা, । বলিতে লজ্জিত হইও না ; ভাই হে, বুঝিয়া । নাবালিকা আদিলীলা শেষ বিভীষিকা । রােখ, কাননিকা কবি । দেখাইতে রঙ্গে ভঙ্গে এস কাননিকা । কবি না বলিয়া কি বলিব ? কবি শব্দ স্কুল দেব শত শত জবা শেফালিকা, । স্ত্রীত্ব-বাচক হয় না জানি, তথাপি কাননিকাকে | ধান ভানলে কুড়ো দেব, মাছ কুটলে মূড়ো দেব, । কবি না। বলিয়া কি বলিব ? মনে যে কত কথা | সোণার থালে ভাত দেব-আর দেব ‘নিক’, ’ আসিয়া পড়ে, ব্যাকরণের জাতেরান্তাদীপ, । ছন্দের মিলের তরে ওগো কনািনক ! : জাগিয়া উঠে ! কিন্তু হায় নিরূপায়, কাননিকাকে : , কোন সূত্রে আবদ্ধ কৰিতে পারিলাম না। :