পাতা:অন্ধকূপ-হত্যা-রহস্য - মুজিবর রহমান.pdf/১৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তৃতীয় পরিচ্ছেদ ছিল। অৰ্ম্মেনিয়ানদের মধ্যে ১০ শত জন সৈন্য সংগ্রহের কথা কিন্তু তাহারা একেবারেই অকর্মণ্য বলিয়া তাহাদের কোনই প্রয়ােজন হইল । কৃষ্ণকায় সৈন্যদের মধ্যে ততােধিক সৈন্য সংগ্রহের আশা ছিল কিন্তু তাহাদের অধিকাংশই নাবালক ও দাস শ্রেণীভুক্ত এবং তাহাদের একজনেরও বন্দুক ধরিবার শক্তি ছিল না•••••••••••শেষ পর্যন্ত যুদ্ধোপযােগী, আমাদের মাত্র ২৫০ জন সৈন্য সংগ্রহ হইল। •••••••••১৮ই জুন তারিখে সন্ধ্যার সময় আমাদে একটী সামরিক সভার অধিবেশন হয় এবং উহাতে কোম্পানীর টাকা পয়সা, কাগজপত্র ও ইউরােপীয় মহিলাগণকে সরাইবার ব্যবস্থা কৰা হইল •••••••••সেই দিনই অধিক রাত্রে আর একটী সামরিক সভায় আয়ােজন হয় এবং সৈন্যবাহিনীর সেনাপতিকে গোলাবারুদের হিসাব দাখিল করিতে বলায় তিনি যে রিপোর্ট দিলেন, তাহাতে জানা গেল মাত্র তিন দিনের গােলাবারুদ রহিয়াছে, ইহাতে আমাদের মস্তকে বজ্রপাত হইল •••••••তখন আমি এবং আমার মনে হয়, আমাদের মধ্যে সকলেই দুর্গত্যাগ করিয়া পলায়ন করিবার সঙ্কল্প করিলাম!••••••••{ সঙ্গিগণসহ ড্রেকএর দুর্গত্যাগ ও পলায়ন )•••••••••দুর্গের প্রেসিডেন্ট ড্রেকসাহেবের পলায়ন বার্তা প্রচারিত হইলে আমাদের মধ্যে একটী মহা বিভ্রাটের সৃষ্টি হইল••••••••এবং তখনই। একটী সভার আয়ােজন করিয়া মিঃ পিয়ারকেস ( Mr. Pearkes) তাহার বয়ােধিক্যের দাবী ত্যাগ করিলে আমাকে প্রেসিডেন্ট নিযুক্ত করা হইল"""••••••আমি ভৎক্ষুণাৎ সৈন্যগণের ঘাটি পরিদর্শনপূৰ্ব্বক সকলকে শান্ত করিলাম••••••o ( ভূতপূর্ব ) প্রেসিডেন্টের দুর্গ ত্যাগের পর আমি সভাগৃহ হইতে বহির্গত হইয়া সৈন্য পরিদর্শনের জন্য বাহির হইবার পূৰ্বেই শত্রুপক্ষ প্রচণ্ডবেগে আমাদিগকে আক্রমণ করিল এবং অবিশ্রান্ত ভাবে সমশুদিন ধরিয়া আক্রমণ চালাইতে থাকিল••••••• •বিপক্ষ পক্ষের । । ০ ০ ০